• শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০০ রাত

স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের দায়ে আজীবন বহিষ্কার ছাত্রলীগ নেতা

  • প্রকাশিত ০৬:২৩ সন্ধ্যা জানুয়ারী ১৪, ২০২০
ছাত্রলীগ ধর্ষণ নারায়ণগঞ্জ
স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের দায়ে সংগঠন থেকে আজীবন বহিষ্কৃত হয়েছেন ছাত্রলীগ নেতা সোহান ঢাকা ট্রিবিউন

কিশোরীকে অপহরণ করে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে আটকে রেখে গণধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার হওয়া ছাত্রলীগ নেতা আবু সুফিয়ান সোহানকে সংগঠন থেকে আজীবন বহিষ্কার করেছে রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ। 

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল আলম শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ ভুইয়া মাসুম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, “রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের জরুরি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী উপজেলা ছাত্রলীগের আওতাধীন তারাব পৌরসভা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ানকে শৃঙ্খলাভঙ্গের দায়ে বহিষ্কার করা হলো।”

বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করে মঙ্গলবার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফয়সাল আলম শিকদার ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান,  এর আগেও তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ সত্বেও প্রমাণ না থাকায় আমরা ব্যবস্থা নিতে পারিনি। ধর্ষণের ঘটনায় আবু সুফিয়ান সোহানের জড়িত বিষয়টি জানার পরপরই আমরা তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেই। একজন অপরাধী কখনোই কোনো দলের অংশ হতে পারে না। তাই উপজেলা ছাত্রলীগের জরুরি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর পরিবারের পাশে আছি। অপরাধীদের যাতে উপযুক্ত বিচার হয় সেজন্য মানববন্ধনও করেছি।


আরও পড়ুন - স্কুলছাত্রীকে ২ দিন ধরে গণর্ধষণ: ছাত্রলীগ নেতাসহ গ্রেফতার ৩


প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার দুপুরে রূপগঞ্জের এক কিশোরীকে অপহরণ করে বন্ধুদের নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে সোহানের বিরুদ্ধে। পরদিন শুক্রবার সকালে ৮৬ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ থানা পুলিশ।

সোহান তারাব পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এবং রূপগঞ্জের রূপসী প্রধান বাড়ি এলাকার বাসিন্দা। বর্তমানে সে ব্রাহ্মণবাড়িয়া কারাগারে রয়েছে।

মামলা ও গ্রেফতারের তথ্য নিশ্চিত করে রূপগঞ্জ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান জানান, ধর্ষণ মামলার পর ওই রাতেই দুই আসামিকে গ্রেফতার করে রূপগঞ্জের পুলিশ। আর সোহানকে গ্রেফতার করা হয় আশুগঞ্জ থানা থেকে। তাকে ধর্ষণ মামলায়ও গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তাকে আশুগঞ্জ থেকে রূপগঞ্জে আনার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

মামলার আরেক পলাতক আসামি তানভীরকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।

মামলায় গ্রেফতার অপর দুই আসামি। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউনএদিকে, নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার দুই আসামি তৌসিফ ও আফজালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। সোমবার নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউছার আহমেদের আদালতে হাজির করে দুজনকে সাত দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন জানালে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত কয়েকদিন আগে একই এলাকার বাদল মিয়ার ছেলে তৌসিফ ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর কাছ থেকে ৫শ’ টাকা ধার নেয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে গন্ধর্বপুর বাসস্ট্যান্ডে ওই স্কুলছাত্রী টাকা ফেরত আনতে যায়। টাকা নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে তৌসিফ, আফজাল, তারাব পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান সোহান ও তানভীরসহ অজ্ঞাত ২-৩ জন তাকে জোরপূর্বক মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়। পরে রূপসী এলাকার একটি বাড়িতে ও কর্নগোপ এলাকার একটি বাড়িতে তারা দুইদিন আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। 

শুক্রবার রাত সাড়ে তিনটার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার মৌচাক এলাকায় ভুক্তভোগী ছাত্রীকে ফেলে রেখে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। পরে তার পরিবারের লোকজন তাকে স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার করে। বর্তমানে ওই স্কুলছাত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসিসিতে চিকিৎসাধীন। 

গত ১১ জানুয়ারি ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে ৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ২-৩ জনকে আসামি করে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন।