• মঙ্গলবার, এপ্রিল ০৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২৩ দুপুর

দীর্ঘদিন পর নতুন ডেঙ্গু রোগীহীন ২৪ ঘণ্টা

  • প্রকাশিত ০৫:০১ সন্ধ্যা জানুয়ারী ১৬, ২০২০
ডেঙ্গু রোগী
নয় মাসে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে সারা দেশের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হন হাজারো মানুষ। ফাইল ছবি। ফোকাস বাংলা

চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হ্রাসের পর হঠাৎ করে আবার বৃদ্ধি পেলেও, দীর্ঘ প্রায় নয় মাস পর ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা শূন্যে নেমে এসেছে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে 

দীর্ঘ প্রায় নয় মাস পর নতুন কোনও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীহীন একটি দিন কাটালো বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি)  স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের  প্রাত্যহিক বিবৃতিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশের কোথাও কোনো ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তির তথ্য পাওয়া যায়নি।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোনো রোগী ভর্তি না হলেও রাজধানীতে ২৬ জনসহ সারাদেশের হাসপাতালগুলোতে বর্তমানে ২৯ রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হ্রাসের পর হঠাৎ করে আবারও বৃদ্ধি পেয়েছিল। তবে দীর্ঘ প্রায় নয় মাস পর আজ ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা শূন্যে নেমে এসেছে।

উল্লেখ্য, গত বছর মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ প্রবল আকার ধারণ করায় জনমনে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। সারাদেশে মাত্রাতিরিক্ত রোগীর চাপে হিমশিম খেতে হয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের হাসপাতালগুলো ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীতে ভরে ওঠে।   

রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) ২০১৯ সালে ২৬৬টি ডেঙ্গুজনিত মৃত্যুর প্রতিবেদনের মধ্যে ২৬৩টি ঘটনা পর্যালোচনা করে ১৬৪ জনের মৃত্যু ডেঙ্গুজনিত বলে নিশ্চিত করে।

গত বছর সারাদেশে এক লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। তাদের মধ্যে চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র নিয়ে ১ লাখ ১ হাজার ৩৭ জন বাড়ি ফেরেন।

এদিকে চলতি বছরের শুরু থেকে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ডেঙ্গুতে সর্বমোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১৫২। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ১২৩ জন।