• বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০১ দুপুর

গণতন্ত্র সূচকে ৮ ধাপ অগ্রগতি বাংলাদেশের, ১০ ধাপ পেছালো ভারত

  • প্রকাশিত ০৯:৩৫ রাত জানুয়ারী ২২, ২০২০
গণতন্ত্র সূচক
ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (ইআইইউ) সংগৃহীত

সূচক অনুযায়ী, ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পরে এবারই সর্বোচ্চ পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ। এশিয়া ও অস্ট্রেলিয়া মহাদেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান এখন ১৭তম

ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) সর্বশেষ (২০১৯) গণতন্ত্র সূচকে বাংলাদেশ ৫ দশমিক ৮৮ স্কোর নিয়ে ৮০তম স্থানে উঠে এসেছে। এর আগের (২০১৮) সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ৮৮ আর স্কোর ছিল ৫ দশমিক ৫৭।

অন্যদিকে, ভারতের অভ্যন্তরে চরম মানবাধিকার খর্ব হচ্ছে বলে রাজ্যে রাজ্যে চলছে গণআন্দোলন। সেই পরিস্থিতির মধ্যেই বিশ্ব গণতন্ত্র সূচকে ১০ ধাপ নিচে নেমে গেলো ভারত। ২০১৯ সালের তালিকায়, ১৬৭টি স্বাধীন দেশের মধ্যে ৫১তম স্থানে জায়গা হয়েছে ভারতের। ২০১৮’তে ভারতের স্থান ছিল ৪১ নম্বরে। এই পতনের জন্য ভারতের নাগরিক অধিকার খর্ব হওয়াকেই দায়ী করছে ব্রিটিশ গবেষণা সংস্থা ইকোনমিস্ট ইনটেলিজেন্স ইউনিট।

ইআইইউ’র সূচক অনুযায়ী, ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতা গ্রহণের পরে এবারই সর্বোচ্চ পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ। এশিয়া ও অস্ট্রেলিয়া মহাদেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৭তম। বাংলাদেশে রাজনৈতিক দলগুলোর অংশগ্রহণের সূচকে পেয়েছে ৬ দশমিক ১১। রাজনৈতিক সংস্কৃতি সূচকে ৪ দশমিক ৩৮। আর বেসামরিক নাগরিকদের স্বাধীনতার সূচকে পাঁচ দশমিক শূন্য।

বিশ্বের কোন দেশের সরকার কতটা সক্রিয়, দেশের নির্বাচন প্রক্রিয়া কতটা স্বচ্ছ, নাগরিক অধিকার কতটা সুরক্ষিত, রাজনৈতিক সংস্কৃতি কেমন, দেশের মানুষ রাজনীতির সঙ্গে কতটা যুক্ত, তা বিচার করে ২০০৬ সাল থেকে গণতন্ত্র সূচক প্রকাশ করে আসছে ইআইইউ। 

গণতন্ত্র সূচক তালিকায় একেবারে শীর্ষে রয়েছে নরওয়ে। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে আইসল্যান্ড। তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে সুইডেন ও নিউজিল্যান্ড। পঞ্চম স্থানে রয়েছে ফিনল্যান্ড।

তালিকার প্রথম ২০’এ জায়গা হয়নি যুক্তরাষ্ট্রের। জার্মানি, ব্রিটেন রয়েছে যথাক্রমে ১৩ ও ১৪তম স্থানে। ২০তম অবস্থানে রয়েছে ফ্রান্স। ১৩৫ নম্বরে রাশিয়া। আর উত্তর কোরিয়া রয়েছে সবার শেষে, অর্থাৎ ১৬৭ নম্বরে।