• বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ রাত

মেয়েকে বেঁধে রেখে মাকে শ্বাসরোধে হত্যা!

  • প্রকাশিত ০৯:৫২ সকাল জানুয়ারী ২৩, ২০২০
মানিকগঞ্জ হত্যাকাণ্ড
হাসপাতালে স্বজনদের আহাজারি ঢাকা ট্রিবিউন

ঘটনার সময় ওই নারীর স্বামী বাড়ির ছাদে কবুতরকে খাবার দিচ্ছিলেন

মানিকগঞ্জ জেলা শহরের দক্ষিণ সেওতা এলাকায় মাহমুদা বেগম (৪৫) নামের এক গৃহবধুকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি ওই এলাকার জহিরুল ইসলামের স্ত্রী। এই হত্যাকাণ্ডকে “পরিকল্পিত” বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। 

বুধবার (২২ জানুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে।

নিহতের স্বজনরা বলছেন, সন্তানদের নিয়ে ৫ তলা ভবনের দোতলায় থাকতেন মাহমুদা। বুধবার সকাল দশটার দিকে অজ্ঞাত পরিচয় তিন ব্যক্তি বাড়িতে ঢুকে তাকে হত্যা করতে উদ্যত হয়। 

মাহমুদার মেয়ে জ্যোতির দাবি, হত্যাকারীরা যখন মা'কে খাটের ওপর শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করছিল তখন তিনি তাকে বাঁচাতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তারা তাকে অন্য একটি কক্ষে নিয়ে হাত-পা বেঁধে রাখে।

খুনীরা তাকেও মেরে ফেলার হুমকি দেয় বলে জানান জ্যোতি। কিছুক্ষণ পরে মাহমুদার মৃত্যু নিশ্চিত করে পালিয়ে যায় তারা।

ঘটনার সময় মাহমুদার স্বামী জহিরুল ইসলাম বাড়ির ছাদে কবুতরকে খাবার দিচ্ছিলেন।

বেলা ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, বাড়িটির আশপাশে স্থানীয়দের ভিড়। পুলিশ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের কাজ করছে। 

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন- মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) হাফিজুর রহমান, সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামানসহ পুলিশ সদস্যরা। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে জেলা পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম সেখানে যান।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) হাফিজুর রহমান বলেন, ওই নারীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে দড়ি পাওয়া গেছে। খুনীরাই সেটি নিয়ে এসেছিল। তাই এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।