• রবিবার, এপ্রিল ০৫, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৯ রাত

ধর্ষণের প্রতিবাদ করায় নৈশপ্রহরীকে হত্যা!

  • প্রকাশিত ০৯:৪৪ সকাল জানুয়ারী ২৪, ২০২০
কুমিল্লা ধর্ষণ হত্যা
ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

গত ৭ জানুয়ারি রাতে ১৫ বছর বয়সী এক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ করে এক অভিযুক্ত

কুমিল্লার চান্দিনায় মহাসড়কে নৈশপ্রহরী দোকানির ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন মরদেহ উদ্ধারের ঘটনার ১০ দিন পর হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। পুলিশের ভাষ্যমতে, প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের প্রতিবাদ করায় নাছির নামে ওই নৈশপ্রহরীকে খুন করা হয় বলে স্বীকার করেন চান্দিনা গ্রামের বাখরাবাদ এলাকার বাসিন্দা মোয়াজ্জেম হোসেন (২৫) ও অটোরিকশা চালক নাওতলা গ্রামের সানাউল্লাহ (২৪)।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ মো. নুরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ২২ জানুয়ারি চান্দিনা এলাকা থেকে মোয়াজ্জেম নামে একজনকে আটক করে পুলিশ। তার দেওয়া তথ্যমতে সানাউল্লাহকে আটক করা হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত ৭ জানুয়ারি রাতে সানাউল্লাহ ১৫ বছর বয়সী এক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ করে। গত ১২ জানুয়ারি বিকেলে সানাউল্লাহ নাছির উদ্দিনের দোকানে গেলে কেন প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ করলো, ধর্ষণ করে কীভাবে এলাকায় ঘুরছে এমন প্রশ্ন করলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে সে। বিষয়টি নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। প্রতিশোধপরায়ন হয়ে সানাউল্লাহ রাতে মোয়াজ্জেম নামে এক অটোরিকশা চালককে সঙ্গে নিয়ে দা দিয়ে নাছিরকে কোপাতে থাকে। জীবন বাঁচাতে দৌড়ে পাশের মহাসড়ক পার হওয়ার সময় গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে নিহত হন তিনি।