• মঙ্গলবার, মার্চ ৩১, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩৬ দুপুর

মারের পর হাত-পা বেঁধে গৃহবধূর চুল কাটলেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন

  • প্রকাশিত ১০:২৪ রাত জানুয়ারী ২৪, ২০২০
নারী নির্যাতন
প্রতীকী ছবি

রাত ৩ টার দিকে ওই নারীর ঘরে ঢুকে তার হাত-পা বেঁধে ফেলেন স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় এক গৃহবধূকে মারধরের পর মুখ, হাত ও পা বেঁধে পৈশাচিকভাবে চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারি) রাতে খানমরিচ ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন ভাঙ্গুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা।

স্থানীয়রা জানান, অভাব-অনটন নিয়ে মাদকাসক্ত স্বামীর সাথে প্রায়ই ঝগড়া হয় দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূর। প্রায়ই গৃহবধূকে শারীরিকভাবে নির্যাতনও করেন তার স্বামী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়ও ওই নারীকে স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়ি মিলে প্রচণ্ড মারধর করেন।

পরে এর জের ধরে গভীর রাতে তারা আবার ওই গৃহবধূর উপর চড়াও হন। রাত ৩ টার দিকে ওই নারীর ঘরে ঢুকে তার হাত-পা বেঁধে ফেলেন স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি। তারপর দ্বিতীয় দফায় মারধর করে ওই নারীর চুল কেটে দেন তারা। পরে এ ঘটনা কারো কাছে প্রকাশ করবে না শর্তে তারা ওই গৃহবধূকে ছেড়ে দেন।

কিন্তু শুক্রবার ভোরে সুযোগ বুঝে পালিয়ে গিয়ে নিজের মামার বাড়িতে আশ্রয় নেন ওই গৃহবধূ। মামাকে সাথে নিয়ে শুক্রবার দুপুরে তিনি ভাঙ্গুড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মাসুদ রানা ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "আসামিদের ধরতে পুলিশ এরই মধ্যে অভিযান শুরু করেছে। শিগগিরই অভিযুক্তদের আটক করে আইনের আওতায় আনা হবে।"