• শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৩ সকাল

টেকনাফে পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে যুবক নিহত

  • প্রকাশিত ১১:৫৩ সকাল জানুয়ারী ২৬, ২০২০
বন্দুকযুদ্ধ
ছবি: প্রতীকী

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) ভোর ৪টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নয়াবাজারের পূর্বে নাফনদীর কিনারায় এই ঘটনা ঘটে

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে মো: নাসির ওরফে মুন্না (৩০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। এসময় পুলিশের ৩জন সদস্য আহত হয় এবং ইয়াবা, অস্ত্র ও তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি পুলিশের।

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) ভোর ৪টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের নয়াবাজারের পূর্বে নাফনদীর কিনারায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত মুন্না হোয়াইক্যং পূর্ব সাতঘরিয়া পাড়ার জালাল আহমদের ছেলে।

পুলিশ জানিয়েছেন, শনিবার রাতে টেকনাফ মডেল থানার একদল পুলিশ মিয়ানমার হতে ইয়াবার চালান আসার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হোয়াইক্যং নয়াবাজারের পূর্বে নাফনদীর কিনারা সংলগ্ন লবণ মাঠে অবস্থান নেয়। পরে রবিবার ভোরের দিকে একদল মাদক কারবারি পুলিশের উপস্থিতি টের পাওয়ার পরই পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে পুলিশের এএসআই অহিদ উল্লাহ (৪০), কনস্টেবল আব্দুল শুক্কুর (২৩) ও মোঃ হেলাল আহত হয়। তখন পুলিশও আত্মরক্ষার্থে বেশ কিছুক্ষণ গুলিবর্ষণ করলে মাদক কারবারিরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল 

তল্লাশি করে ১০ হাজার ইয়াবা, ৩টি দেশীয় অস্ত্র ও ১২ রাউন্ড তাজা কার্তুজসহ গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিতে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারি মুন্নাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানিয়েছেন, মাদকবিরোধী অভিযানে গোলাগুলিতে ৩জন পুলিশ সদস্য আহত ও ১জন মাদক কারবারি গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে নিহত হয়। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে ১০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৩টি দেশিয় তৈরি এলজি, ১২ রাউন্ড কাতুজ ও ১৬ রাউন্ড খোসা উদ্ধার করা হয়। এব্যাপারে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।