• শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৩ সকাল

চায়ের সঙ্গে ঘুমের ঔষধ মিশিয়ে ভাতিজিকে ধর্ষণ

  • প্রকাশিত ০১:১৫ দুপুর জানুয়ারী ২৬, ২০২০
গণধর্ষণ-ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি বিগস্টক

গত ২০ জানুয়ারি হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলায় চায়ের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে ভাতিজিকে অচেতন করে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে চাচার বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৫ জানুয়ারি) চুনারুঘাট থানায় এবিষয়ে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ২০ জানুয়ারি জেলার রাতে চুনারুঘাট উপজেলায় আপন ফুপাতো ভাইয়ের বাড়িতে চা খেতে যান অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি। 

সেসময় তার ভাতিজি চা বানাতে গেলে অভিযুক্ত ব্যক্তি নিজেই চা বানাবেন বলে তার ভাইয়ের বাড়ির রান্নাঘরে যান। পরে চা তৈরি করে সবাইকে খেতে দেন এবং খোশগল্প করতে থাকেন। একসময় সবাই ঘুমিয়ে পড়লে মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগীর পরিবার।

পরদিন সকালে ঘুম থেকে না ওঠায় পাশের ঘরে থাকা ভুক্তভোগীর ভাই তাদের ডাক দেন। কিন্তু ঘুম থেকে না ওঠায় তার চিৎকার শুনে এলাকাবাসী এসে মাসহ ওই ভুক্তভোগীকে অচেতন অবস্থায় দেখতে পান। পরে তাদের সহযোগিতায় চুনারুঘাট হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয় মেয়েটিকে।

অবশেষে ৫ দিন পর শনিবার সন্ধ্যায় ভিকটিম বাদী হয়ে চুনারুঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

চুনারুঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাজমুল হক জানান, “এবিষয়ে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।”  ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।