• বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ০২, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:০৭ সকাল

পররাষ্ট্রমন্ত্রী: ৯৩ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি শ্রমিকের বৈধতা নেই

  • প্রকাশিত ১০:১৮ সকাল জানুয়ারী ২৭, ২০২০
প্রবাসী শ্রমিক
বিমানবন্দরে সৌদি আরব থেকে বাংলাদেশে ফেরত আসা শ্রমিকরা। ফাইল ছবি।সৈয়দ জাকির হোসেন/ঢাকা ট্রিবিউন

'এছাড়াও আরও অনেক দেশে বাংলাদেশের প্রবাসী শ্রমিক রয়েছে যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে'

বাংলাদেশের ৯৩ হাজারেরও বেশি প্রবাসী শ্রমিক সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), কুয়েত, দক্ষিণ কোরিয়া এবং ইরানে বর্তমানে অবৈধভাবে আছেন বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাংসদ এম আবদুল লতিফের তারকাচিহ্নিত প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান তিনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, "ইউএই এবং দুবাইয়ে ৮০ হাজার, কুয়েতে পাঁচ হাজার, মিশরে চার হাজার, দক্ষিণ কোরিয়ায় আড়াই হাজার এবং ইরানে দেড় হাজার বাংলাদেশি শ্রমিকের মেয়াদোত্তীর্ণ ভিসা নিয়ে বসবাস করছে।"

"এছাড়াও আরও অনেক দেশে বাংলাদেশের প্রবাসী শ্রমিক রয়েছে যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে সঠিক সংখ্যাটা জানাতে পারছে না সরকার," যোগ করেন তিনি। 

ড. মোমেন আরও বলেন, "প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ পররাষ্ট্র নীতি ও মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশনের প্রচেষ্টায় ২০১৬ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে সেদেশে কাজ করার বৈধতা পাওয়ার জন্য ছয় লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক আবেদন করেছে। এই ছয় লাখের মধ্যে চার লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক মালয়েশিয়ায় কাজ করার বৈধতা পেয়েছে। এখন মালয়েশিয়াতে বৈধতার জন্য আবেদনের কোনো সুযোগ নেই।"

সৌদি আরবের বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে মন্ত্রী বলেন, "গত ২২ ডিসেম্বর সৌদি সরকার সেদেশে থাকা অবৈধ শ্রমিকদের তাদের নিজ নিজ দেশে ফেরত আসার জন্য (স্পেশাল এক্সিট প্রোগ্রাম) ঘোষণা করেছে। এর অংশ হিসেবে জেদ্দাতে থাকা বাংলাদেশ দূতাবাস সৌদি সরকারের ঘোষণা মেনে বাংলাদেশি শ্রমিকদের সহায়তা করে যাচ্ছে।"

আবদুল মোমেন বলেন, "এ স্পেশাল এক্সিট প্রোগ্রামের আওতায় যেসব বাংলাদেশি শ্রমিক ফিরে এসেছেন তারা বৈধ ভিসা নিয়ে আবার সৌদি আরবে যেতে পারবেন। চলমান প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে ঠিক কতজন শ্রমিকের ভিসা মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে তা জানা যাবে।"