• রবিবার, এপ্রিল ০৫, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩৬ রাত

গোপালগঞ্জে ৫৫ ফিট উচ্চতার প্রতিমায় বিদ্যার দেবীর পূজা

  • প্রকাশিত ০৪:২৩ বিকেল জানুয়ারী ৩০, ২০২০
গোপালগঞ্জ সরস্বতী
গোপালগঞ্জের ৫৫ ফিট উচ্চতার সরস্বতী প্রতিমা ঢাকা ট্রিবিউন

 আয়োজকদের দাবি, এটিই উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ সরস্বতী প্রতিমা। প্রতিমাটি তৈরি করেছেন শ্রীবাস গাইন 

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিদ্যা, জ্ঞান, বাণী ও সুরের দেবী সরস্বতী। প্রতি বছর দেশের অন্যান্য জায়গার মতো গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সনাতন ধর্মালম্বীদের বাড়ি বাড়িতে আনন্দমুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে সরস্বতী পূজার আয়োজন করা হয়। 

তবে এ বছর সরস্বতী পূজায় ভিন্ন মাত্রা যোগ হয়েছে। উপজেলার কান্দি ইউনিয়নের আমবাড়ী গ্রামের “শ্রীশ্রী রাধাগোবিন্দ ও গণেশ পাগল সেবাশ্রম” ৫৫ ফিট উচ্চতার প্রতিমা সাজিয়ে সরস্বতী পূজার আয়োজন করেছে। 

আয়োজকদের দাবি, এটিই উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ সরস্বতী প্রতিমা। প্রতিমাটি তৈরি করেছেন শ্রীবাস গাইন। 

এদিকে, পূজা দেখার জন্য আমবাড়ি গ্রামের আশপাশের এলাকা থেকে উৎসুক জনতার ভিড় জমেছে। এছাড়াও পার্শ্ববর্তী জেলা বরিশাল, পিরোজপুর এসেছেন অনেকে। আর এই পূজাকে কেন্দ্র করে বসেছে ৩ দিন ব্যাপী গ্রামীণ মেলা। আয়োজন করা হয়েছে ধর্মীয় যাত্রাপালা ও কবি গানের।

প্রতিমাটির পাল (নির্মাতা) শ্রীবাস গাইন জানান, “১০ জন সহকারীকে নিয়ে এক মাস ধরে এ প্রতিমাটি তৈরি করেছি। আমি এর আগেও দেশের বিভিন্ন এলাকায় এ ধরনের বড় প্রতিমা তৈরি করেছি। তবে এর আগে ৪৫ ফিট উচ্চতার প্রতিমা তৈরি করেছি। ৫৫ ফিট উচ্চতার প্রতিমা এবারই প্রথম।”

পুরোহিত গোলক চন্দ্র গাইন(৫৫) বলেন, “আমি ৩০ বছর ধরে পূজা করি। এতো বড় প্রতিমায় কখনো পূজা করিনি। এতো বড় প্রতিমায় পূজা করতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি।”

পূজা কমিটির সভাপতি বিশ্বপদ মণ্ডল বলেন, আমরা এলাকার যুবকরা মিলে এই পূজার আয়োজন করেছি। গত বছর আমরাই ৪৫ ফিট উচ্চতার প্রতিমায় সরস্বতী পূজার আয়োজন করেছিলাম। এ বছর প্রতিমার উচ্চতা ৫৫ ফিট।

পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কালিপদ গাইন বলেন, আমার জানা মনে এটিই এ উপমহাদেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় প্রতিমায় সরস্বতী পূজা। আগামীতেও আমরা এ পূজা চালিয়ে যাবো।