• শুক্রবার, এপ্রিল ০৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৭ রাত

চীন থেকে আসা কয়লা খনির ৩ কর্মকর্তা নিবিড় পর্যবেক্ষণে

  • প্রকাশিত ০৬:০৭ সন্ধ্যা জানুয়ারী ৩১, ২০২০
বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র
কয়লার অভাবে ৫৩ দিন বন্ধ থাকার পর আবার উৎপাদন শুরু করেছে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র। ফাইল ছবি। ঢাকা ট্রিবিউন

তবে তাদের মধ্যে এখনও করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা যায়নি বলে জানা গেছে

সম্প্রতি চীন থেকে আসা দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির তিন কর্মকর্তাকে হাসপাতালের বিচ্ছিন্ন ওয়ার্ডে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুছ জানান, প্রায় ১০ দিন আগে চীন থেকে আসা তিনজন কর্মকর্তাকে কয়লা খনির অভ্যন্তরের হাসপাতালে রাখা হয়েছে। সেখানকার চিকিৎসকরা তাদেরকে চিকিৎসা দিচ্ছেন। সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি সিভিল সার্জন কার্যালয়ে অবগত করেছেন এবং প্রয়োজন হলে এখান থেকে চিকিৎসক পাঠানো হবে।

তবে তাদের মধ্যে এখনও করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা যায়নি বলে জানা গেছে।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির জনসংযোগ কর্মকর্তা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক একেএম বদরুল আলম বলেন, এই খনিতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিএমসি-এক্সএমসির অধীনে চীনের প্রায় ৫ শতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছেন।

উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে চীনে এই ভাইরাসের সংক্রমণে মারা গেছেন অন্তত ২১৩ জন। আর আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ১০ হাজার মানুষ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত পৃথিবীর ১৮টি দেশে ৯৮ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া গেছে। তবে তাদের মধ্যে কেউ এখনও মারা যাননি।