• শুক্রবার, এপ্রিল ০৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৫ দুপুর

রাতের বেলায় তালা ঝুলিয়ে গোপালগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ

  • প্রকাশিত ০১:১১ দুপুর ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২০
গোপালগঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়-বিক্ষোভ
ইউজিসি'র নির্দেশনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে বিক্ষোভ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা ঢাকা ট্রিবিউন

ইউজিসির এক সভায় বিভাগটিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন সুষ্ঠুভাবে শেষ করার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) ভর্তি বন্ধের নির্দেশনা প্রত্যাখ্যান করেছেন গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা। ইউজিসি'র সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাতে প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করেছেন তারা।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার ইউজিসির এক সভায় আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগে আর কোন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে না বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তবে ইউজিসি'র এই সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ বিভাগটির শিক্ষার্থীরা। প্রতিবাদ জানিয়ে প্রথমে রাত ১০ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত প্রশাসনিক ভবনের নিচে বিক্ষোভ প্রদর্শন, ভবনে তালা ঝুলিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সবশেষে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন তারা।

বিভাগটির ৩য় বর্শের শিক্ষার্থী রাশেদুল ইসলাম ও কারিমুল হক বলেন, ইতিহাস বিভাগ আমাদের অস্তিত্ব। আমরা চাই না এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভাগটি বন্ধ হয়ে যাক। আমাদের বিভাগকে ইউজিসি অনুমোদন না দেওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শাহজাহান বলেন, ইউজিসির এক সভায় বিভাগটিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন সুষ্ঠুভাবে শেষ করার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। পাশাপাশি, আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে বিভাগটিতে নতুন করে শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধের বিষয়ে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে ইউজিসির অনুমোদন ছাড়াই যাত্রা শুরু করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগ। বর্তমানে বিভাগটি অধ্যয়নরত মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪১৩ জন।

মনোজ সাহা, গোপালগঞ্জ