• মঙ্গলবার, এপ্রিল ০৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪১ রাত

তারকাদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করতেন 'টিম সিলেট'র সদস্যরা

  • প্রকাশিত ০৭:৩৮ রাত ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২০
গ্রেফতার
চলচ্চিত্র তারকাদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ২ যুবককে গ্রেফতার করে র‍্যাব। সৌজন্যে

মিশা সওদাগর, জায়েদ খাঁন, রিয়াজ, শাহনুর, আঁচল, রেসি, কেয়া, মাহি, বিপাশাসহ বিভিন্ন শিল্পী কলাকুশলীদের ফেবুকক আইডি হ্যাক করেছেন বলে জানিয়েছেন গ্রেফতার হ্যাকাররা

চলচ্চিত্র তারকাদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ২ যুবককে গ্রেফতার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

গ্রেফতার দুই যুবক হলেন - মীর মাসুদ রানা (৩৫) ও মো. সৌরভ (১৯)। শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) ভোরে রাজধানীর মহাখালী থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান র‍্যাব-২ এর কমান্ডিং অফিসার (সিও) আশিক বিল্লাহ।

তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রাজধানীর মহাখালী এলাকা থেকে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ফেসবুক হ্যাকিংয়ে ব্যবহৃত ৪টি মোবাইল, ১টি ল্যাপটপ, বিভিন্ন কোম্পানির ২০টি সিম কার্ড এবং অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করা সংক্রান্ত আলামত উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতার দুই যুবক প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মিশা সওদাগর, জায়েদ খাঁন, রিয়াজ, শাহনুর, আঁচল, রেসি, কেয়া, মাহি, বিপাশাসহ বিভিন্ন শিল্পী কলাকুশলীদের ফেবুকক আইডি হ্যাক করেছেন বলে জানিয়েছেন। তারা "টিম সিলেট" নামক একটি হ্যাকার গ্রুপের সদস্য বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানায় র‍্যাব।

শুধু তারকারাই নয় সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীদের আইডিও হ্যাক করতেন তারা। হ্যাক করা আইডি ফেরত দিতে তারা ৫০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিতেন।

এর আগে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে র‍্যাবের কাছে অভিযোগ দেওয়া হয়। অভিযোগে বলা হয়, আগেও বেশ কয়েকজন তারকার ফেসবুক আইডি হ্যাক করা হয়। পরে মোটা অংকের টাকার মাধ্যমে উদ্ধার করা হয় এসব ফেসবুক অ্যাকাউন্ট উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনার শিকার হয়েছেন শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানও।

র‍্যাব জানায়, এমন অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করা হয়। পরে ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টারের সহায়তায় "টিম সিলেট" নামক হ্যাকিং গ্রুপ সম্পর্কে জানতে পারেন তারা। এই গ্রুপের হ্যাকাররা ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করতেন। বাংলাদেশে এই চক্রের প্রায় ২০ জন সদস্য রয়েছেন।

নাসির নামে এক যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী এই দলের মূল হোতা। কিছুদিন আগে সাইবার অপরাধে যুক্ত থাকার কারণে যুক্তরাষ্ট্র পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। নাসিরই ফেসবুকসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে হ্যাকার গ্রপে যোগদানের জন্য লোক নিয়োগ করতেন।

পরে ভিডিও টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে কীভাবে ফেসবুক আইডি হ্যাক করতে হবে, নিজ দখলে নিতে হবে, কীভাবে নকল জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি করা যায় এ ব্যাপারে গ্ররুপের সদস্যদের শেখাতেন তিনি। পরে কাজ হাসিলের পর আইডি ফেরত দেওয়ার সময় সতর্কতার সাথে টাকা আদায়ের কাজটিও তিনি যুক্তরাষ্ট্রে বসে সমন্বয় করতেন।

সিও আশিক বিল্লাহ বলেন, গ্রেফতার দুই যুবক বাদে এ গ্রুপের অন্য সদস্যরা হলেন - বাবলু রহমান, আতিক, জায়না রায়হান, আফরাজ মিম আশা, সারাকা মজুমদার, সিন্থিয়া, তানভি, সুমাইয়া রুবি প্রমুখ।