• বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ০২, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৫ সকাল

সেলফিটি তোলার পরই ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু

  • প্রকাশিত ০৭:২৬ রাত ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০
কুড়িল
রাজধানীর কুড়িলে রেললাইনের ওপর দাঁড়িয়ে বন্ধুর সঙ্গে সেলফি তোলার সময় ১৬ ফেব্রুয়ারি মো. ইমরান নামের এক স্কুলছাত্র নিহত হয়। ঢাকা ট্রিবিউন

ছবিতে রাফি ও ইমরানের কিছুটা পেছনে এগিয়ে আসা ট্রেনটিও দেখা যাচ্ছে

রাজধানীর কুড়িলে রেললাইনের ওপর দাঁড়িয়ে বন্ধুর সঙ্গে সেলফি তোলার সময় মো. ইমরান (১৬) নামের এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে তার সঙ্গে থাকা বন্ধু আল রাফি (১৬)।  রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত ইমরান নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল দক্ষিণ পাড়ার শাহ আলমের ছেলে। সে ও রাফি দুজনই স্থানীয় গোলাকান্দাইল মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। 

ইমরানের চাচা আল-আমিন জানান, আজ সকালে স্কুলে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয় ইমরান।  পরে তারা জানতে পারেন, সে কুড়িল এলাকায় দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যান তারা। সেখান থেকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে গিয়ে ইমরানকে মৃত অবস্থায় পান।  

ঘটনার সময় উপস্থিত ইমরানের সহপাঠীদের বরাত দিয়ে আল-আমিন আরও বলেন, ইমরান বন্ধুদের সঙ্গে স্কুল ফাঁকি দিয়ে ঘুরতে বের হয়েছিল। এর এক পর্যায়ে কুড়িল এলাকার রেল লাইনের ওপর দাঁড়িয়ে রাফি সেলফি তুলছিল। সেলফিতে থাকতে তার পাশেই ছিল ইমরান। এসময় পেছন থেকে আসা ট্রেনের ধাক্কায় দুজনই গুরুতর আহত হয়। পরে সহপাঠীরা তাদের উদ্ধার করে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।  হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক দুপুর ১২টার দিকে ইমরানকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এদিকে দুর্ঘটনার ঠিক আগমুহুর্তে রাফির তোলা একটি সেলফি ঢাকা ট্রিবিউনের হাতে এসেছে। ওই ছবিতে রেল লাইনের ওপর রাফিকে সেলফি তুলতে এবং ইমরানকে পাশে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় তাদের কিছুটা পেছনে ওই লাইন দিয়ে এগিয়ে আসা ট্রেনটিও ছিল।   

ঢাকার রেলওয়ে (কমলাপুর) থানার  বিমানবন্দর ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) মহিউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, কুড়িলে রেল লাইনে দাঁড়িয়ে মোবাইলে ছবি তুলতে গিয়ে দুজন আহত হয়। তাদেরকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে ইমরানকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।  আহত শিক্ষার্থী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 

ময়নাতদন্তের জন্য ইমরানের মরদেহ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।