• শুক্রবার, এপ্রিল ০৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৫৩ দুপুর

গাজীপুরে কারখানার সকল কর্মীকে বাধ্যতামূলক নামাজ পড়ার নির্দেশ!

  • প্রকাশিত ০১:৩৭ দুপুর ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
নোটিশ
গাজীপুরের মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের সব মুসলিম কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রতিদিন তিন ওয়াক্ত নামাজ পড়া বাধ্যতামূলক করে জারি করা নোটিশের ছবি। সংগৃহীত

স্টাফদের নিয়মিত নামাজ আদায়ে উৎসাহিত করতেই এই নোটিশ জারি করা হয়েছে বলে জানান মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের কার্যনির্বাহী পরিচালক আবদুল কুদ্দুস

গাজীপুরের মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের সব মুসলিম কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রতিদিন তিন ওয়াক্ত নামাজ পড়া বাধ্যতামূলক করে নোটিশ জারি করা হয়েছে। এই নোটিশের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নানা আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

গত ৯ ফেব্রুয়ারি জারি করা ওই নোটিশে কারখানার সকল মুসলিম স্টাফদের জন্য জোহর, আসর ও মাগরিবের নামাজ বাধ্যতামূলক ঘোষণা করা হয়। প্রতিবার নামাজ পড়তে ঢোকার সময় মসজিদের পাঞ্চ মেশিনে পাঞ্চ করে উপস্থিতি নিশ্চিত করার নির্দেশনাও জারি করা হয়েছে ওই নোটিশে।

মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার মো. আবু শিহাব স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে সকল বিভাগের প্রধান, ম্যানেজার, অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার ও কর্মকর্তাদের জন্য এই এই নিয়ম চালু করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। তবে, অধীনস্ত কর্মচারীদের ক্ষেত্রেও এই নিয়মের প্রয়োগ করার জন্য উল্লিখিত কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয় নোটিশে।

নোটিশে আরও বলা হয়, কোনও কর্মকর্তা-কর্মচারী যদি মাসে ৭ বার নামাজ আদায় থেকে বিরত থাকেন তাহলে তার এক দিনের বেতন কেটে রাখা হবে। তবে, ২০০৬ সালের শ্রম আইন অনুযায়ী এমন কোনও নিয়ম জারি করার নিয়ম নেই।

এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের কার্যনির্বাহী পরিচালক আবদুল কুদ্দুস নোটিশ জারির বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, "স্টাফদের নিয়মিত নামাজ আদায়ে উৎসাহিত করতেই এই নোটিশ জারি করা হয়েছে। আমরা আমাদের কোম্পানিতে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার চেষ্টা করি। কারণ আমাদের অধিকাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দীর্ঘদিন ধরে এখানে কাজ করছেন। আমরা সবার উদ্দেশেই এই নোটিশ দিয়েছি, কিন্তু তার মানে এই নয় যে এই ব্যাপারে আমরা কঠোরতা অবলম্বন করবো।"

নামাজ না পড়লে বেতন কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, "স্টাফরা চাপে পড়ে হলেও যাতে অন্তত একটু চেষ্টা করে দেখেন সেটা নিশ্চিত করতেই এ বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।"

উল্লেখ্য, তৈরি পোশাকসহ মাল্টিফ্যাবস লিমিটেডের বিভিন্ন পণ্যের কারখানায় ৫,৫০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করেন। এর মধ্যে অনেক অমুসলিম কর্মকর্তা-কর্মচারীও রয়েছেন।