• মঙ্গলবার, এপ্রিল ০৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪১ রাত

বিয়ের তারিখ চূড়ান্ত করার দিনেই ঠাঁই হলো কবরে

  • প্রকাশিত ০৭:৩২ রাত ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০
বগুড়া সালাম
নিহত ঠিকাদার আবদুস সালাম ‌‌ঢাকা ট্রিবিউন

অভিযুক্ত ঘাতককে একবার রক্ত দিয়ে বাঁচিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি

হবু স্ত্রী'র জন্য নতুন বাড়ি, আসবাবপত্রসহ অন্যান্য প্রস্তুতি ছিল শেষ পর্যায়ে। বিয়ের দিন চূড়ান্ত করার জন্য কণের বাড়ি যাওয়ার কথা থাকলেও বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) স্বজনরা আবদুস সালামের (৩৬) দাফন-কাফন নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন।

মঙ্গলবার রাতে বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার বৃ-কুষ্টিয়া চারমাথা এলাকায় জনসমক্ষে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয় তাকে।

নিহতের ভাতিজা মশিউর রহমান বুধবার বিকেলে কান্নাজড়িত কণ্ঠে এসব তথ্য দিয়ে বলেন, সাবেক ইউপি সদস্য শাহজাহানের জীবন বাঁচাতে একদিন সালাম শরীরের রক্ত দিয়েছিলেন। প্রতিদানে সে সালামের প্রাণ নিলো।

শাজাহানপুর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আমবার হোসেন জানান, বিকেল পর্যন্ত এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি। তাই হত্যার কারণ ও ঘাতকদের পরিচয় জানা যায়নি।

তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন নিহতের স্বজনরা।

নিহতের স্বজনরা জানান, পেশায় ইলেকট্রিক ঠিকাদার আবদুস সালামের বিয়ে ঠিক হয়েছিল। বিয়ের জন্য তিনি নতুন বাড়ি নির্মাণ, আসবাবপত্র ক্রয় ও অন্যান্য প্রস্তুতিও নিয়েছিলেন। বুধবার পরিবারের সদস্যদের বিয়ের দিন ঠিক করার জন্য কণের বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, অন্যান্য দিনের মতো হত্যাকাণ্ডের দিনও (মঙ্গলবার) সন্ধ্যার দিকে বাড়ি থেকে বৃ-কুষ্টিয়া চারমাথা এলাকায় চা খেতে যান সালাম। সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে একটি দোকানে বসে চা খাওয়ার সময় অভিযুক্ত হত্যাকারী শাহজাহান ঘটনাস্থলে এসে সালামের পাজরে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করেন স্থানীয়রা। সেখানে রাত ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

বুধবার আসর নামাজের পর জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।