• সোমবার, এপ্রিল ০৬, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:৫২ বিকেল

সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা: শেষ পর্যন্ত যাচ্ছে না জাবিও

  • প্রকাশিত ০৭:১৬ রাত ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২০
জাবি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার। সংগৃহীত

ইউজিসি প্রস্তাবিত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে অসম্মতি জানিয়েছে ৭৩-এর অধ্যাদেশভুক্ত সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ই

দেশের সব সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) প্রস্তাবে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি), চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) পর আপত্তি জানিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি)। তারাও আগের মতোই নিজস্ব পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে ইউজিসি প্রস্তাবিত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতিতে অসম্মতি জানিয়েছে ৭৩-এর অধ্যাদেশভুক্ত সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয়ই।

মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন জাবি'র ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান।

তিনি বলেন, আপাতত বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক সভায় সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় অংশ না নেওয়ার বিষয়টি সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। তবে সমন্বিত পরীক্ষা পদ্ধতি অংশ নেওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পরবর্তীতে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়টির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার ও একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য সচিব রহিমা কানিজ বলেন, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে প্রথম আলোচনা হয়। সেদিন এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়ায় বিশেষ একাডেমিক সভা আহ্বানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সে অনুযায়ী বিশেষ একাডেমিক সভায় বসেন সদস্যরা। সভায় উপস্থিত ৪০ সদস্যের মধ্যে অধিকাংশ সদস্য কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার বিষয়ে রাজি হননি। ফলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় চলমান নিজস্ব নিয়ম অনুযায়ী শিক্ষার্থী ভর্তি করবে।

জাবি'র উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক নুরুল আলম বলেন, ইউজিসির আয়োজনে হতে যাওয়া কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় এ বছর না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা পরিষদ। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত নিয়মেই পরবর্তী ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।