• মঙ্গলবার, এপ্রিল ০৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১০ সকাল

কোচিং সেন্টারে চাঁদাবাজি-ভাঙচুর, দুই ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

  • প্রকাশিত ০৭:০৮ রাত ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০
রাজশাহী-ছাত্রলীগ
কোচিং সেন্টারে চাঁদাবাজি ও ভাংচুরের মামলায় রাজশাহীর দুই ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ঢাকা ট্রিবিউন

দাবি করা টাকার পুরোটা না পাওয়ায় তারা কোচিং সেন্টারে ভাঙচুর চালান

কোচিং সেন্টারে চাঁদাবাজি ও ভাঙচুরের মামলায় রাজশাহী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম ও সিটি কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা আসাদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ঢাকা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন।

তিনি বলেন, বুধবার বেলা ১১টায় রাজশাহী সিটি কলেজ সংলগ্ন এলাকা থেকে আসাদকে ও দুপুর দেড়টায় নগরীর সিঅ্যান্ডবি মোড় থেকে নাইমুল হাসান নাঈমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরপর বিকেলে আদালতে সোপর্দ করা হলে বিচারক তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার বরাত দিয়ে ওসি বলেন, রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হাসান নাঈম ও আসাদ, মারুফসহ তার কয়েকজন অনুসারী নগরীর সোনাদীঘির মোড় এলাকার ইউনি কেয়ার কোচিং সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। বিভিন্নভাবে প্রতিষ্ঠানটি থেকে তারা চাঁদা আদায় করেছেন। গত শনিবার আবারও ১০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন অভিযুক্তরা। এতে অপারগতা প্রকাশ করা সত্ত্বেও তারা জোরপূর্বক প্রতিষ্ঠানটি থেকে ৩ হাজার টাকা নিয়ে আসেন। দাবি করা টাকার পুরোটা না পাওয়ায় রবিবার রাত ৮টার দিকে নাঈম ও তার অনুসারীরা কোচিং সেন্টারে ভাঙচুর চালান। 

ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কোচিং সেন্টারটির পরিচালক রায়হান হোসেন দু'টি মামলার করেন। যার ভিত্তিতে নাঈম ও আসাদকে গ্রেফতার করা হয়। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি।