• রবিবার, এপ্রিল ০৫, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৪ রাত

ঢাকা চিড়িয়াখানায় হাতির পিঠে চড়ায় নিষেধাজ্ঞা

  • প্রকাশিত ০৭:৪৮ রাত ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০
চিড়িয়াখানা-হাতি
জাতীয় চিড়িয়াখানায় হাতির পিঠে এক দর্শনার্থী। এএফপি

নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আগে প্রতিদিন অন্তত এক হাজার দর্শনার্থী হাতির পিঠে চড়তেন

রাজধানীর মিরপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ জাতীয় চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীদের আকর্ষণের অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু ছিল হাতির পিঠে চড়া। তবে সম্প্রতি প্রাণীটির কষ্টের কথা ভেবে হাতির পিঠে চড়া নিষিদ্ধ করেছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

প্রাণী অধিকার কর্মীদের দীর্ঘ দিনের দাবির মুখে গত মাসে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

এবিষয়ে চিড়িয়াখানার কিউরেটর নজরুল ইসলাম এএফপি’কে বলেন, প্রাণী অধিকার কর্মীদের সাথে আমরা একমত হয়েছি যে, হাতির পিঠে চড়ার বিষয়টি প্রাণীটির জন্য ভালোকিছু নয়। আসলে এটা প্রাণীটির ওপর একধরনের নির্যাতন ও সহিংসতা।  

চিড়িয়াখানায় বর্তমানে পাঁচটি এশিয়ান হাতি রয়েছে যাদের বয়স ১০ থেকে ৩০ বছর। এছাড়া ৮টি বিপদাপন্ন রয়েল বেঙ্গল টাইগারসহ ১৩৭ প্রজাতির আড়াই হাজারেরও বেশি প্রাণী রয়েছে।


আরও পড়ুন - বাঘের সংখ্যা দ্বিগুণ করতে বাংলাদেশ কি ব্যর্থ হতে যাচ্ছে?


নজরুল ইসলাম জানান, নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আগে প্রতিদিন অন্তত একহাজার দর্শনার্থী হাতির পিঠে চড়তেন।

তিনি বলেন, “যদিও হাতির পিঠে চড়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কারণে মাহুতেরা অখুশি হয়েছেন, কারণ এতে তাদের আয়ের একটি উৎস বন্ধ হয়েছে গেছে। কিন্তু এতে সন্দেহ নেই, পিঠে চড়ার কারণে প্রাণীগুলো কষ্ট পাচ্ছিলো।”

এদিকে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন বাংলাদেশ এনিম্যাল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন “অভয়ারণ্য”-এর প্রতিষ্ঠাতা রুবাইয়া আহমেদ বলেন, দারুণ সিদ্ধান্ত, চমৎকার।   

প্রসঙ্গত, বাণিজ্যিকভাবে হাতির পিঠে চড়া নিয়ে বিশ্বজুড়ে দীর্ঘদিন ধরেই প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন প্রাণী অধিকার কর্মীরা। এরপরিপেক্ষিতে ইউরোপ-আমেরিকার বিভিন্ন দেশসহ ভারতেও হাতির পিঠে চড়ায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 




আরও পড়ুন - বনরুই পাচার ও বিলুপ্তি ঠেকাতে সরকারের পদক্ষেপ কি যথাযথ?