• রবিবার, এপ্রিল ০৫, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:২৮ সন্ধ্যা

‘মোদি এদেশের মাটিতে পা রাখলে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে’

  • প্রকাশিত ০৯:৫৩ রাত ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০
মোদি
বিক্ষুব্ধ ছাত্র জমিয়তের নেতা-কর্মী ও মুসল্লিরা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ছবিতে আগুন দেয়। ইউএনবি

‘প্রয়োজনে এদেশের মাটিতে আবারও বদরের যুদ্ধ হবে। কোনো অবস্থাতেই মোদিকে বাংলার মাটিতে ঢুকতে দেওয়া হবে না’

ভারতে নাগরিকত্ব আইন সংশোধনের প্রতিবাদ করায় দেশটির রাজধানীতে হিন্দুত্ববাদীদের সহিংসতা, মুসলিম গণহত্যা-নির্যাতন ও মসজিদ-মিনারে অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ সিলেট জেলা শাখা।

বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বন্দরবাজারস্থ দলীয় অফিসের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সিটি পয়েন্টে গিয়ে পথসভা করে।

এ সময় বিক্ষুব্ধ ছাত্র জমিয়তের নেতা-কর্মী ও মুসল্লিরা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কুশপুত্তলিকা দাহ ও জুতা নিক্ষেপ করে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, অসাম্প্রদায়িক নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে কসাই ও সন্ত্রাসী মোদিকে অতিথি করা হয়েছে। মোদি এদেশের মাটিতে পা রাখলে রক্তের বন্যা বয়ে যাবে। প্রয়োজনে এদেশের মাটিতে আবারও বদরের যুদ্ধ হবে। কোনো অবস্থাতেই মোদিকে বাংলার মাটিতে ঢুকতে দেওয়া হবে না।ভারতে মুসলিমবিরোধী দাঙ্গার প্রতিবাদে ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশের সিলেট জেলা শাখার বিক্ষোভ মিছিল। ইউএনবি

তারা বলেন, চা বিক্রেতা মোদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার কোনো যোগ্যতা রাখে না। তবুও স্বৈরতান্ত্রিকভাবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হয়ে নিরীহ মুসলমানদের ওপর হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে। নির্বিচারে গুলি করে মারছে। মসজিদ-মাদরাসা জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দিচ্ছে, মিনারে হনুমানের পতাকা লাগিয়েছে। এসব কাজ বিশ্বের ৪০০ কোটি মুসলমানদের কলিজায় আঘাত দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ভারতের দিল্লিতে সহিংসতার ঘটনায় ৩২ জনের মৃত্যু ও প্রায় দুই শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন বলে এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে।