• মঙ্গলবার, মার্চ ৩১, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:২৬ রাত

বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রীকে অপহরণের চেষ্টা

  • প্রকাশিত ০৮:২১ রাত ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০
অপহরণ
প্রতীকী ছবি

অপহরণ চেষ্টায় বাধা পেয়ে ছাত্রীর মা-বাবা ও মামাকে মারধর করে এবং ছাত্রীর বোনকেও অপহরণের হুমকি দেয় তারা

ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলায় মালয়েশিয়া প্রবাসী এক যুবকের বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রীকে অপহরণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অপহরণে ব্যর্থ হয়ে হামলা করে ছাত্রীর বাড়িতে ভাঙচুরসহ ছাত্রীর মা-বাবা ও মামাকে মারধর করে অভিযুক্তরা।

উপজেলার কৈখালী বাজার এলাকায় বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরের এ ঘটনায় ওইদিন রাতে ছাত্রীর মামা বাদী হয়ে কাঁঠালিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পশ্চিম চেঁচরী গ্রামের বাসিন্দা শামীম হোসেন খানের মেয়ের (কলেজ ছাত্রী) সাথে একই বংশের মালয়েশিয়া প্রবাসী মোশারফ হোসেনের পুত্র মহিউদ্দনের জন্য মহিষকান্দি গ্রামের স্পেন প্রবাসী মিরাজ ও তার ভাই মালয়েশিয়া প্রবাসী পলাশ, সাইফুল, মারুফ, তুষার ও রিয়া মনিসহ এদের পরিবারের লোকজন বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। অশিক্ষিত প্রবাসী ছেলে সাথে বিয়ের এ প্রস্তাবে মেয়ে ও তার মা-বাবা রাজি না হওয়ায় মেয়ে ও তার মা-বাবাসহ পরিবারের লোকজনকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছি। 

পরে বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে মিরাজ ও মহিউদ্দীনের নেতৃত্বে ১৫/২০ জন রামদা, লোহার রড, হাতুরি ও লাটিসোটা নিয়ে ওই মেয়েকে জোরপূর্বক অপহরণের চেষ্টা করে। অপহরণ চেষ্টায় বাধা পেয়ে ছাত্রীর মা-বাবা ও মামাকে মারধর করে এবং ছাত্রীর বোনকেও অপহরণের হুমকি দেয় তারা। এ ঘটনায় ছাত্রীর মামা মহিউদ্দিনসহ সাতজনকে আসামি করে কাঁঠালিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বাদি জাকির হোসেন জানান, আমার ভাগনির উপযুক্ত বয়স না হওয়ায় এবং অপাত্রে মেয়েকে বিবাহ দিতে অস্বীকৃতি জানানোর কারণে আসামিরা আমার ভাগ্নিকে অপহরণের চেষ্টা করে। 

কাঠালিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) কাজী সাখাওয়াত হোসেন বলেন, “বিয়ের প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ছাত্রীর বাসা-বাড়ি ভাংচুর ও পরিবারকে জিম্মি করার ঘটনায় ওই ছাত্রীর মামা জাকির হোসেন বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে সাত জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যহত রয়েছে।”