• সোমবার, এপ্রিল ০৬, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:০৫ সন্ধ্যা

জাবির ‘সাঁঈত্রিশের যুগপূর্তি’: চলছে রেজিস্ট্রেশন

  • প্রকাশিত ০২:২৪ দুপুর মার্চ ৬, ২০২০
জাবি
যুগপূর্তি অনুষ্ঠানের লোগো

আগামী ১০ মার্চ পর্যন্ত অনলাইন ও অফলাইন উভয় পদ্ধতিতেই রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা যাবে বলে জানিয়েছেন যুগপূর্তি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক কিশোর শুভ

“বন্ধুত্বের একযুগ” স্লোগানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৭তম ব্যাচের যুগপূর্তি উপলক্ষে “সাঁঈত্রিশের যুগপূর্তি” শীর্ষক পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। এজন্য ইতোমধ্যে ফেসবুকে একটি ইভেন্টও খোলা হয়েছে।  

আগামী ১০ মার্চ পর্যন্ত অনলাইন ও অফলাইন উভয় পদ্ধতিতেই রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা যাবে বলে জানিয়েছেন যুগপূর্তি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক কিশোর শুভ। 

তিনি জানান, রেজিস্ট্রেশন ফি ব্যাচের সকলের জন্য ১ হাজার টাকা, সঙ্গে স্বামী-স্ত্রী, পরিবারের অন্যান্য সদস্য বা ড্রাইভারের জন্য ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। অফলাইনে রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে ক্যাম্পাসে এএসএম জিন্নাহ (০১৮১৬৩০৮৭৬৫) অথবা অগ্রণী ব্যাংক বিশ্ববিদ্যালয় শাখায় ০২০০০১৫০১৮১৯৭ একাউন্টে নির্ধারিত পরিমাণ টাকা জমা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা যাবে। তবে এক্ষেত্রে পে-স্লিপের ছবি ব্যাচের গ্রুপে আপলোড দিতে হবে।

তবে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের ক্ষেত্রে প্রথমে ০১৭১৭৬৪২০৮২ (পার্সোনাল) নম্বরে খরচসহ মোবাইল ব্যাংকিং (নগদ, বিকাশ, রকেট, মাইক্যাশ) সেন্ডমানি করতে হবে। টাকা পাঠানোর পরে গ্রুপে দেওয়া গুগল ফর্মটি যথাযথভাবে পূরণ করলেই রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হবে। এক্ষেত্রে এসএমএস মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন নিশ্চিতকরণ বার্তা না পাওয়া পর্যন্ত ট্রানজেকশন নম্বর/ব্যাংক পে-স্লিপ নিজের কাছে সংরক্ষণ করতে হবে। 

সফল ও স্মরণীয় একটি আয়োজনে দ্রুত রেজিস্ট্রেশন করার অনুরোধ জানিয়ে কিশোর শুভ বলেন, “যুগপূর্তি অনুষ্ঠানের সব আপডেট “সাঁঈত্রিশের আড্ডাঘর” গ্রুপ এবং “সাঁঈত্রিশের যুগপূর্তি” ইভেন্টে পাওয়া যাবে। এছাড়া রেজিস্ট্রেশন বা অন্য যেকোনো জটিলতায় জ্বালানোর জন্য শুভ ০১৭১৭৬৪২০৮২ (আহ্বায়ক), জিন্নাহ ০১৮১৬৩০৮৭৬৫ (ক্যাম্পাস প্রতিনিধি), শামীম ০১৬১১৫৫০৭১৭ (ট্রেজারার) ও  মুখরের ০১৭৯১৩৩৪৬০৭ (ট্রেজারার) মোবাইল নম্বর ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে।”

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালের ১৬ মার্চ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন জীবনের সূচনা করে ৩৭তম ব্যাচ। পড়াশোনার পাশাপাশি ব্যাচটি সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, খেলাধুলা, স্বেচ্ছাসেবী কর্মকাণ্ডসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সামর্থের সর্বোচ্চ সক্ষমতা প্রদর্শন করে এসেছে। জীবন ও বাস্তবতায় সকলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকলেও যুগপূর্তির দুর্দান্ত মাইলফলককে রাঙিয়ে রাখতে, নতুন জীবনের আঁতুরঘর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়েই আয়োজন করছে যুগপূর্তি অনুষ্ঠানের।