• রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪০ রাত

পেঁয়াজ-চালের দাম বেশি রাখায় টাঙ্গাইলে ২৫ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

  • প্রকাশিত ০২:২৭ দুপুর মার্চ ২০, ২০২০
টাঙ্গাইল ভ্রাম্যমাণ আদালত
টাঙ্গাইলে বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ঢাকা ট্রিবিউন

আড়ত ও খুচরা বাজারে গিয়ে করোনা আতঙ্ককে পুঁজি করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম না বাড়ানোর বিষয়ে সতর্ক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত

হঠাৎ করেই চাল, ডাল, পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য মজুত করতে শুরু করেছেন ব্যবসায়ীরা। এর প্রভাব পড়েছে টাঙ্গাইলের নিত্যপণ্যের বাজারে। হঠাৎ করেই বাড়তি দামে পণ্য বিক্রি শুরু করেছেন বিক্রেতারা। 

খবর পেয়ে শুক্রবার (২০ মার্চ) অভিযানে নামে স্থানীয় প্রশাসন। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকারের নেতৃত্বে শহরের পাক বাজারে পেঁয়াজ ও চালের বাজারসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজারে অভিযান চালানো হয়। অভিযান চালানো হয় গোপালপুর ও বাসাইল উপজেলায়ও।

অভিযানে পর্যাপ্ত মজুত থাকা সত্ত্বেও কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে দাম বাড়ানোর অপরাধে ৭ পেঁয়াজ ব্যবসায়ী, ৩ চাল ব্যবসায়ীসহ মোট ১৩ ব্যবসায়ীকে হাতে-নাতে আটক করা হয়। পরে তাদের ৯ জনকে ১০ হাজার টাকা এবং তিনজনকে ৫০ হাজার ও একজনকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকার। এছাড়াও ওই এলাকার বিভিন্ন আড়ত ও খুচরা বাজারে গিয়ে করোনা আতঙ্ককে পুঁজি করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম না বাড়ানোর বিষয়ে সতর্ক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

অর্থদণ্ড দেওয়া হয়- চাঁন মিয়া, আক্তার হোসেন, সোহেল মিয়া, গোবিন্দ সরকার, সবুজ মিয়া, হাসু মিয়া, আকমল হোসেন, জোয়াহের আলী, সেকান্দার হোসেন, সিদ্দিকুর রহমান, মোসলেম উদ্দিন, জাহাঙ্গীর হোসেন ও আমিনুল ইসলামকে। 

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকার বলেন, বাজারে পর্যাপ্ত পরিমাণে দ্রব্যমূল্যের সরবারাহ রয়েছে। কোনো কিছুর অভাব নেই। তবুও করোনোভাইরাসের কারণে মানুষের শঙ্কাকে কাজে লাগিয়ে পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা ৪০ টাকার পেঁয়াজ ৮০ টাকায়, প্রতি কেজি চালের বিক্রয়মূল্য ৩৫ টাকার পরিবর্তে ৪৫ টাকায় বিক্রি করছিলেন। অন্যদিকে, মুদির দোকানগুলোতে কোনো দ্রব্যমূল্যের তালিকা টানানো ছিলো না আর দামও নেওয়া হচ্ছিল বেশি। এসব অপরাধে হাতে-নাতে ১৩ ব্যবসায়ীকে আটক করে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। 

এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, করোনাভাইরাসের আতঙ্ককে পুঁজি করে কেউ যেন বাজারে কৃত্রিম সংকট তৈরি না করতে পারে এবং মজুত থাকার পরেও নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম না বাড়াতে পারে সেজন্য জেলা প্রশাসন মাঠে থাকবে। নিয়মিত বাজার মনিটরিংয়ের পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলবে।

এছাড়া, একই অপরাধে গোপালপুর উপজেলায় ৫ ব্যবসায়ীকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিকাশ বিশ্বাস।

অপরদিকে, বাসাইল উপজেলায় দাম বেশি রাখায় ৬ পেঁয়াজ ব্যবসায়ী এবং ১ চাল ব্যবসায়ীকে ৭ হাজার ৫শ’ টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। দুপুরে বাজারে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশরাফুন্নাহার এই জরিমানা আদায় করেন।