• রবিবার, মার্চ ২৯, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪০ রাত

টাঙ্গাইলে কলেজ শিক্ষিকাকে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার শ্লীলতাহানি

  • প্রকাশিত ০৭:৫০ রাত মার্চ ২০, ২০২০
ধর্ষণ-শিশু-যৌন হয়রানি
প্রতীকী ছবি বিগস্টক

প্রতিবাদ করলে তারা শিক্ষিকাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ও টান দিয়ে তার হিজাব খুলে নেয়

টাঙ্গাইলের নাগরপুর সরকারি কলেজের এক শিক্ষকাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে একই কলেজের সাবেক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। 

এ ঘটনায় তিনজনকে আসামি করে নাগরপুর থানায় মামলা দায়েরের পর শুক্রবার (২০ মার্চ) সকালে বাবু নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- নাগরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ছাত্রলীগ মনোনীত সাবেক ভিপি ও কলেজ ছাত্রলীগ শাখার সাবেক সাধারণ সম্পাদক আল-মামুন এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাদিকুর রহমান বিপ্লব।

মামলা সূত্রে জানা যায়, নাগরপুর সরকারি কলেজের একজন প্রভাষক বৃহস্পতিবার রাতে চশমা মেরামত করতে গেলে দোকানে কাউকে না পেয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় মোটর সাইকেলে করে সাবেক ভিপি মামুন দোকানে এসে বসলে ওই শিক্ষিকা তাকে দোকানদার সম্পর্কে জিজ্ঞেস করেন। উত্তরে মামুন অসৌজন্যমূলক কথা শোনায়। ঘটনার প্রতিবাদ করলে বাবু ও বিপ্লব নামে দুই যুবক মামুনের সাথে যোগ দেয়। এ সময় তারা শিক্ষিকাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে ও টান দিয়ে তার হিজাব খুলে নেয়।  

এ ব্যাপারে ওই কলেজ শিক্ষিকা ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “আর আমি এদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করছি।”

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে আল-মামুন ঘটনা বলেন, “আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলক এ মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।”

নাগরপুর থানার ওসি আলম চাঁদ বলেন, “নাগরপুর সরকারি কলেজের এক শিক্ষক শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনে সাবেক ভিপি মামুনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে একজনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো করা হয়েছে। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।”