• শুক্রবার, আগস্ট ১৪, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩২ রাত

নওগাঁয় ভারতে পাচারকালে তক্ষক উদ্ধার

  • প্রকাশিত ০৪:৩৮ বিকেল মে ৬, ২০২০
নওগাঁ-তক্ষক
উদ্ধারকৃত তক্ষক। ঢাকা ট্রিবিউন

‘তক্ষকের দাম ও তক্ষক দিয়ে তৈরি ওষুধ নিয়ে ব্যাপক গুজব ছড়ানো হয়েছে। আর গুজবে বিশ্বাস করে এক শ্রেণির লোকেরা রাতারাতি ধনী হবার স্বপ্নে তক্ষক শিকারে নেমেছে’

নওগাঁয় পোরশা উপজেলা সীমান্ত এলাকা থেকে ভারতে পাচারকালে একটি তক্ষক উদ্ধার ও দুই পাচারকারীকে আটক করেছে বিজিবির ১৬ ব্যাটালিয়ন।  

মঙ্গলবার (০৫ মে) দুপুরে পোরশার নীতপুর বিওপির একটি বিশেষ টহল দল সীমান্ত পিলার ২১৯/১১ সংলগ্ন বাংলাদেশের পারঘাট নামক স্থান থেকে তক্ষকসহ দুই ব্যক্তিকে আটক করে। 

আটককৃতরা হলেন- সাপাহার থানার করমুডাংগা গ্রামের রেজওয়ান (৪৫) ও একই থানার খঞ্জনপুর গ্রামের মো. নুর নবী (৩০)। 

বিজিবি সূত্র জানায়, উদ্ধারকৃত তক্ষকটি লম্বায় সাড়ে সাত ইঞ্চি, ওজন ৪০ গ্রাম। এ সময় পাচারকারীদের ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেলও আটক করা হয়। আটককৃতদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে মো. নুর নবীকে পাঁচ হাজার ও মো. রেজওয়ানকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 


আরও পড়ুন - পদ্মা সেতুর চীনা শ্রমিকদের জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছিলো সজারু


এ বিষয়ে ১৬ বিজিবির কর্মকর্তা লুৎফর রহমান বলেন, উদ্ধারকৃত তক্ষকটিকে পোরশা উপজেলা ম্যাজিস্ট্রেট এবং বন্য প্রাণীসম্পদ কার্যালয়ের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে নীতপুর বিওপির দক্ষিণে গানাইর সংরক্ষিত বনে অবমুক্ত করা হয়েছে।

তক্ষক সম্পর্কে বাংলাদেশ বন বিভাগের বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা জোহরা মিলা ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “তক্ষক (Gecko) গিরগিটি প্রজাতির র্নিবিষ নিরীহ বন্যপ্রাণী। সাধারণত পুরাতন বাড়ির ইটের দেয়াল, ফাঁক-ফোকড় ও বয়স্ক গাছে এরা বাস করে। কীটপতঙ্গ, টিকটিকি, ছোট পাখি ও ছোট সাপের বাচ্চা খায়। আইইউসিএন এর লাল তালিকা অনুযায়ী এটি বিপন্ন বন্যপ্রাণী।”


আরও পড়ুন - ময়ূরটিকে তাড়া করছিল কুকুর, উদ্ধার করলেন কৃষক


তিনি আরো বলেন, “তক্ষকের দাম ও তক্ষক দিয়ে তৈরি ওষুধ নিয়ে ব্যাপক গুজব ছড়ানো হয়েছে। আর গুজবে বিশ্বাস করে এক শ্রেণির লোকেরা রাতারাতি ধনী হবার স্বপ্নে তক্ষক শিকারে নেমেছে। মূলত ব্যাপক নিধনই তক্ষক বিলুপ্তির প্রধান কারণ। তক্ষক দিয়ে তৈরি বিভিন্ন ওষুধের উপকারীতা নিয়ে সেসব শোনা যায়, বৈজ্ঞানিকভাবে তার কোনো ভিত্তি নেই। তারপরও এই গুজবটির কারণেই প্রাণীটি হারিয়ে যেতে বসেছে।”


আরও পড়ুন - ডিম পেড়েছে কালিম পাখি

53
50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail