• বুধবার, জানুয়ারি ২৭, ২০২১
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪২ রাত

স্বপ্নের পদ্মা সেতু: বাকি আর মাত্র চারটি স্প্যান

  • প্রকাশিত ০৫:৩১ সন্ধ্যা নভেম্বর ১২, ২০২০
পদ্মা সেতু
গত ১২ নভেম্বর পদ্মা সেতুর ৩৭তম স্প্যান বসানো হয়। ঢাকা ট্রিবিউন

বৃহস্পতিবার দুপুরে বসানো হয়েছে পদ্মা সেতুর ৩৭তম স্প্যানটি

পদ্মা সেতুর ৩৭তম স্প্যান বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) দুপুর পৌনে ৩টার দিকে সেতুর মাওয়া প্রান্তে পিয়ার-৯ ও পিয়ার-১০ এর ওপর ৩৭তম স্প্যান স্থাপন করা হয়। এতে সেতুর সাড়ে পাঁচ কিলোমিটারের বেশি দৃশ্যমান হলো। এখন বাকি আছে মাত্র চারটি স্প্যান।

পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের এ খবর নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে স্প্যান ২-সি পিয়ারে বসানো হয়। বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ১১টায় স্প্যানটি লৌহজংয়ের মাওয়ার কুমারভোগে অবস্থিত কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডের স্টিল ট্রাস জেটি থেকে তিয়ান-ই ক্রেনে করে পিয়ারের উদ্দেশে রওনা দেয়। ৩০ মিনিট পরেই সেটা কাঙ্ক্ষিত পিয়ারের কাছে পৌঁছে যায়।

সফলভাবে ২-সি স্প্যান বসানোর পর সেতুর মোট পাঁচ হাজার ৫৫০ মিটার দৃশ্যমান হলো। আর বাকি আছে মাত্র চারটি স্প্যান। এই চারটি স্প্যানের মধ্যে দুইটির রঙ করা শেষ হয়েছে। বাকি দুইটির রঙ করার কাজ শেষের পথে। ৩৬তম স্প্যান বসানোর ছয় দিনের মাথায় বসলো ৩৭তম স্প্যান। গত মাসে (অক্টোবরে) চারটি স্প্যান বসানো হয়েছে।

এছাড়া ১৬ নভেম্বর পিয়ার ১ ও ২ নম্বরে ৩৮তম স্প্যান '১-এ', আগামী ২৩ নভেম্বর পিয়ার ১০ ও ১১ নম্বরে ৩৯তম স্প্যান '২-ডি', ২ ডিসেম্বর পিয়ার ১১ ও ১২ নম্বরে ৪০তম স্প্যান '২-ই' এবং ১০ ডিসেম্বর সর্বশেষ ৪১ নম্বর স্প্যান '২-এফ' বসবে ১২ ও ১৩ নম্বর পিয়ারের ওপর।

পদ্মা সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর বসানো হবে ৪১টি স্প্যান। এই স্প্যানের ছোট ছোট অংশগুলো প্রথমে তৈরি করা হয়েছে চীনে। পরে জাহাজে করে দীর্ঘ সমুদ্রপথ পাড়ি দিয়ে আনা হয় বাংলাদেশের কন্সট্রাকশন এলাকায়। সেখানে ছোট অংশগুলো একটির সঙ্গে আরেকটি ঝালাই দিয়ে ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যের প্রত্যেকটি স্প্যান তৈরি করা হয়। তারপরে প্রতিটি স্প্যান ধূসর রঙে রাঙিয়ে পিয়ারে তোলা হয়। তবে, তার আগে কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডের স্টিল ট্রাস জেটি থেকে তিয়ান-ই ক্রেনে করে পিয়ারের উদ্দেশে রওনা দেয়। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ও কারিগরি জটিলতা না থাকলে একদিনেই একটি স্প্যান পিয়ারে উপর স্থাপন করা হয়। তবে আবহাওয়া প্রতিকূলে থাকলে, আলোক স্বল্পতা দেখা দিলে, নদীতে তীব্র স্রোত বা নাব্য সংকট থাকলে কখনও কখনও স্প্যান বসাতে দুই দিন লেগে যায়।

মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে চীনের আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন। সংযোগ সড়ক নির্মাণ করেছে বাংলাদেশের আব্দুল মোমেন লিমিটেড।

এদিকে, স্প্যান বসানোর পাশাপাশি সেতুর অন্যান্য কাজও দ্রুত এগিয়ে চলছে। সেতুর মাসিক অগ্রগতির রিপোর্ট অনুসারে ৩১ অক্টোবরের মধ্যে ২৯১৭ টি রোডওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে বসানো হয়েছে ১১৬৬ টি এবং ২৯৫৯ টি রেলওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে ১৬৪৬ টির বেশি বসানো হয়ে গেছে। সেতুর উভয় প্রান্তে ভায়াডাক্টের ৪৮৪টি সুপার-টি গার্ডারের মধ্যে স্থাপন হয়েছে ২৫৮টি। ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত মূল সেতুর কাজের অগ্রগতি ৯০ দশমিক ৫০ ভাগ। সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছিল ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে এবং শেষ হওয়ার সংশোধিত শিডিউল ২০২১ সালের জুন মাসে। যদিও প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন কাজ শেষ হতে আরও বেশি সময় লাগতে পারে।

54
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail