• শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৩ রাত

রাজশাহী মেডিকেলে একদিনে আরও ১৫ জনের মৃত্যু

  • প্রকাশিত ১১:২৮ সকাল আগস্ট ২, ২০২১
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ। সংগৃহীত

গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালটির করোনা ইউনিটে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছে ৩৭ জন

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একদিনে আরও ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার সকাল ৮টা থেকে সোমবার সকাল ৮টার মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (২ আগস্ট) রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, মৃতদের মধ্যে কোভিড আক্রান্ত হয়ে ৭ জন ও উপসর্গে ৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে রাজশাহীর ৬, নাটোর ২, পাবনার ৫, কুষ্টিয়ার ১ এবং নওগাঁর ১ জন আছেন।

এদের মধ্যে ৯ জন পুরুষ এবং ৬ জন নারী। যাদের ৮ জনের বয়স ৬১ বছরের ওপরে। বাকিদের মধ্যে ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সের মধ্যে তিনজন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সের মধ্যে দুইজন।

শামীম ইয়াজদানী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছে ৩৭ জন। একই সময় সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৫৯ জন। সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত করোনা ইউনিটের ৫১৩ বেডের বিপরীতে ভর্তি আছে ৩৯৯ জন। এদের মধ্যে আইসিইউতে রয়েছে ২০ জন।

করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন রোগীদের মধ্যে ১৭৪ জনের কোভিড পজিটিভ রয়েছে। উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছে ১৪৬ জন; যাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও কোভিডমুক্ত হয়েও পরবর্তী স্বাস্থ্য জটিলতায় চিকিৎসাধীন ৭০ জন।

হাসপাতাল পরিচালক জানান, রাজশাহীতে ওঠানামা করছে এ ভাইরাস সংক্রমণের হার। রবিবার দুইটি ল্যাবে রাজশাহী জেলার ৩৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১০০ জনের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে।

যা আগের দিনের চেয়ে ৫. ৫৪% কমে শনাক্তের হার ২৭.১৭%। এর আগের দিন শনিবার ছিল ৩২.৭১%। এছাড়াও গত শুক্রবার ছিল ২৪.৩২%, গত বৃহস্পতিবার ২২.৮৮%, গত বুধবার ছিল ২৮.৯০%, গত মঙ্গলবার শনাক্তের হার ছিল ২২.৭৬%।

শামীম ইয়াজদানী বলেন, “হাসপাতালে পৃথক চারটি প্যাথলজিক্যাল সেবা চালু করা হয়েছে। এখন থেকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনা রোগীদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য আর বাইরে যেতে হবে না। ডি-ডাইমার, ডি-হাইড্রোজেনেস, সিআরপি, সিরাম ফেরিটিনের মতো পরীক্ষাগুলোও হাসপাতালেই হবে। এগুলো বাইরের ডায়াগনস্টিক সেন্টারে করতে অনেক টাকা নেয়। তাই হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের এ সেবা শুরু হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “কোভিড রোগীদের এই পরীক্ষাগুলো একাধিকবার করতে হয়। ফলে করোনা পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যয়ভার বহন করতে না পেরে এর আগে অনেক রোগী পরোপুরি সুস্থ হওয়ার আগেই হাসপাতাল ছেড়ে চলে যাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।”

প্রসঙ্গত, সরকার নির্ধারিত ৬০০ টাকায় ডি-ডাইমার, ২৫০ টাকায় সিরাম ফেরিটিন এবং ১৫০ টাকায় ডি-হাইড্রোজেনেস ও সিআরপি পরীক্ষা করা যাবে। পাশাপাশি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) রোগীদের আরও তিনটি পরীক্ষা একসঙ্গে ৬০০ টাকায় করা হবে। ইসিজির ব্যবস্থা আগে থেকেই ছিল। এর সঙ্গে এখন ট্রপোনিন আইও টেস্ট করা যাবে ৫০০ টাকায়। হাসপাতালের বাইরে এই পরীক্ষাগুলো করাতে কোভিড রোগীদের গুনতে হতো চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা।



50
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail