• সোমবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০২১
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:১১ রাত

‘রাজনৈতিক বক্তব্যকে মাঠের কর্মকাণ্ড থেকে আলাদা করা গুরুত্বপূর্ণ’

  • প্রকাশিত ০৮:১৪ রাত অক্টোবর ১১, ২০২১
বিজিবি-বিএসএফ
বিজিবি-বিএসএফের প্যারেড ঢাকা ট্রিবিউন

ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী সম্প্রতি টুইটারে বলেছেন, তিনি যেকোনো বিষয়ে আলোচনা করবেন। ঢাকা ট্রিবিউনের জন্য অ্যাডাম পিটম্যানকে দেওয়া এই বিশেষ সাক্ষাৎকারে তিনি দেখিয়েছেন এই বিষয়টিকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দিচ্ছেন তিনি। আমরা আগামীতে সাক্ষাৎকারটি ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করব।

কিছুদিন আগে, আমি ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক নিয়ে একটি নিবন্ধ পড়েছি এবং টুইটারে সেটি শেয়ার করেছি। প্রবন্ধটি ছিল বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী এবং তার সহকর্মীদের আয়োজিত একটি সংবাদ সম্মেলন নিয়ে। সেখানে তারা ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে সংযোগ ও বাণিজ্যের অর্থনৈতিক সুবিধা ব্যাখ্যা করেছিলেন ।

হাইকমিশন বিষয়টিকে "We mean business" লিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেছিল, যা আমাকে উৎসাহিত করেছে।

ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের অর্থনৈতিক সম্ভাবনা অপরিসীম। অসংখ্য গবেষণায় দেখা গেছে, অর্থনৈতিক সমন্বয় উভয় দেশের মানুষের জন্য নতুন কর্মসংস্থান এবং আয়ের উৎস তৈরি করবে। সেই সুযোগগুলো অনেক বাংলাদেশি এবং বাংলাদেশের নিকটবর্তী এলাকায় বসবাসকারী ভারতীয়দের জীবন বদলে দেবে।

কিন্তু টুইটারে সবাই এই বক্তব্য সমানভাবে দেখেনি। কেউ কেউ বলেছেন যে, ভারতকে বিশ্বাস করা যায় না।

অতঃপর জানতে পারলাম যে, হাই কমিশনার নিজেই তার টুইটার থ্রেডে মন্তব্য করছিলেন।

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। ফাইল ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

তার সোজাসাপটা উত্তর ছিল বেশ প্রাণবন্ত। তিনি একজন সমালোচককে বলেছিলেন, তিনি যেকোনো বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন। আমার কাছে মনে হয়েছে তিনি সত্যিকার অর্থেই কথাটা বলেছেন।

তাই আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলাম তিনি একটি ইমেল ইন্টারভিউ করবেন কি-না? বলামাত্রই রাজি হয়ে গেলেন তিনি। যার ফলস্বরূপ এই ধারাবাহিক সাক্ষাৎকার। 

ঢাকা ট্রিবিউন: ভারতীয় এবং বাংলাদেশিদের মধ্যে অনেক অবিশ্বাস রয়েছে। কখনও কখনও সাংবাদিকরা গণমাধ্যমে সেটি প্রকাশ করেন।  কখনও রাজনীতিবিদদের কথায় প্রকাশ পায় এটি। আবার কখনও মানুষ এ নিয়ে অনেক বাড়াবাড়ি করে ফেলে অজ্ঞ, বর্ণবাদী বা ঘৃণ্য ভাষা ব্যবহার করার মাধ্যমে। আপনাকে বাংলাদেশি মানুষ আপত্তিকর ভাষা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলে আপনি তাদের কী বলেন?

দোরাইস্বামী: আন্তরিকতার সাথে আমি বলব, যেকোনো পরিস্থিতিতে, যেকোনো দিক থেকে অপমানজনক বা অশোভন ভাষা ব্যবহারের পক্ষে কোনো যুক্তি নেই।

এ ধরনের দুঃখজনক দৃষ্টিভঙ্গিকে ব্যাখ্যা করার (বৈধতা দেওয়ার নয়) ঐতিহাসিক বা সমাজতাত্ত্বিক কারণ থাকতে পারে। কিন্তু সংক্ষিপ্ত বিষয় হলো যে, একটি দেশের উন্নয়ন অন্য দেশের জন্য একটি অভ্যন্তরীণ বিষয়।

আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের অভ্যন্তরীণ প্রভাবগুলো দুই দেশের জন্যই একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক, সে ভালো বা খারাপ যেকোনো কারণে হতে পারে।

ভারতের ক্ষেত্রে, আমি কিছুটা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি যে, এই ঘটনাটি সম্ভবত অপেক্ষাকৃত স্থানীয় পর্যায়ে। বাংলাদেশ মাঝে মাঝে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পরিণত হয়েছে, স্থান-কাল-পাত্রভেদে। আমি যতটুকু জানি, বাংলাদেশে স্থানীয় পর্যায়ে এটি কিছুটা কম। প্রায়শই ভারত বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

এটি আমাদের দৃষ্টিভঙ্গির জটিলতা বাড়ায়। অন্য কথায়, ভালো বা খারাপ যাই হোক, একান্ত স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আমাদের সম্পর্কের একটি ইতিবাচক প্রভাব রয়েছে। যা মাঝে মাঝে নেতিবাচকও বটে। তাই, আমাদের সম্পর্কের বিষয়গুলো কেবল পররাষ্ট্রনীতির বিষয় নয়।

তবে আমার এই কথার প্রেক্ষাপটে আমি এটা বলব যে, রাজনৈতিক বক্তব্যকে মাঠের কর্মকাণ্ড থেকে আলাদা করা গুরুত্বপূর্ণ। যদি আপনি “দৃষ্টি প্রসারিত” করে সম্পর্ককে বৃহত্তর দৃষ্টিকোণ থেকে দেখেন, তাহলে এটা স্পষ্ট যে ভারতে বেশ ধারাবাহিক প্রচেষ্টা হয়েছে - যার উদ্দেশ্য রাজনৈতিক দিক থেকে দ্বিপক্ষীয় - বাণিজ্য বৃদ্ধি, মানুষের চলাচল বৃদ্ধি, বিধিনিষেধ সহজ করা এবং এক কথায় বলতে গেলে সব প্রচেষ্টাই ছিল বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দিতে।

এই প্রবণতাটি আসলে গত সাত বছরে উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে। সুতরাং, বক্তৃতা এবং বাস্তবতা কেবল কাজেই প্রমাণিত হয়,যা প্রায়ই বেশ স্পষ্টভাবে ভিন্ন হয়।

50
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail