আবারও মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানালো ঢাকা

বাংলাদেশের ভেতরে মিয়ানমারের গোলা এসে পড়ার ঘটনায় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান অভিযান এবং এর ফলে বাংলাদেশের ভেতরে ওইদেশ থেকে গোলা এসে পড়ার ঘটনার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা।

রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং চয়ে মোয়েকে তলব করে এ বিষয়ে একটি কূটনৈতিক আনুষ্ঠানিক পত্র হস্তান্তর করা হয় বলে জানিয়েছে অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউন।

এ নিয়ে গত ১৫ দিনের মধ্যে মিয়ানমার রাষ্ট্রদূতকে তিন দফা তলব করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

রবিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মিয়ানমার অনুবিভাগের মহাপরিচালক মিয়া মাইনুল কবির রাষ্ট্রদূতকে সমন করেন।

এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, "আজ সকালে রাষ্ট্রদূতকে তলব করে প্রায় এক ঘণ্টা বৈঠক করা হয়। তাকে এ ঘটনায় বাংলাদেশের ক্ষোভের কথা জানানো হয়।

তিনি আরও জানান, রাষ্ট্রদূতকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় তলব করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্তের রেজু আমতলী বিজিবি বিওপির আওতাধীন সীমান্ত পিলার ৪০-৪১ এর মাঝামাঝি স্থানে মিয়ানমার সীমান্তের ওপারে সেনাবাহিনীর দুটি যুদ্ধবিমান এবং দুটি ফাইটিং হেলিকপ্টার টহল দেয়। সে সময় তাদের যুদ্ধবিমান থেকে প্রায় ৮-১০টি গোলা ছোড়া হয়। এ ছাড়া হেলিকপ্টার থেকেও আনুমানিক ৩০ থেকে ৩৫টি গুলি করতে দেখা যায়। যুদ্ধবিমান থেকে ছোড়া দুটি গোলা সীমান্ত পিলার ৪০ বরাবর আনুমানিক ১২০ মিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে পড়ে। এই ঘটনার পর থেকে সীমান্তে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বিজিবি।

এ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেন, “মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর সীমান্ত লঙ্ঘনের পর মিয়ানমারের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে বাংলাদেশ।মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সহিংসতা চলছে। আমরা সীমান্ত সিল করে দিয়েছি। মিয়ানমার যতই উসকানি চালিয়ে যাক না কেন, আমরা সীমান্ত দিয়ে কাউকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেব না।”

এর আগে, রবিবার (২৮ আগস্ট) বেলা ৩টার দিকে মিয়ানমার থেকে নিক্ষেপ করা দুটি মর্টারশেল অবিস্ফোরিত অবস্থায় ঘুমধুমের তমব্রু উত্তর মসজিদের কাছে পড়েছিল।

ADVERTISEMENT

×