Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মিরপুরে করোনাভাইরাসে আরও এক ব্যক্তির মৃত্যু

রবিবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা-১৪ আসনের এমপি আসলামুল হক

আপডেট : ২৩ মার্চ ২০২০, ১১:২৫ এএম

করোনাভাইরাস- কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে মিরপুরে আরও এক ব্যক্তির (৬০) মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংসদ সদস্য (এমপি) মো. আসলামুল হক। রবিবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়।

শুক্রবার রাতে করোনভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া ৭৩ বছর বয়সী বৃদ্ধের প্রতিবেশী ছিলেন এই ব্যক্তি। মৃত দুই ব্যক্তি টোলারবাগ এলাকার একটি মসজিদে এক সাথে নামাজ পড়তে যেতেন। সেখান থেকে তাদের সংক্রমণ হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এমপি আসলামুল জানান, ওই ব্যক্তির শরীর খারাপ হওয়ার সাথে সাথে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন পরিবারের সদস্যরা। হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। পরে তার মৃতদেহ পরীক্ষা করে করোনাভাইরাস শনাক্ত করে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

এমপি আরও জানান, তবে ওই মসজিদে যে ব্যক্তির মাধ্যমে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে তাকে এখনও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। তাকে শনাক্ত করার জন্য জোর প্রচেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে ওই এলাকার বাসিন্দাদের বাড়ি থেকে বের না হওয়ার জন্য মসজিদ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে।

আসলামুল আরও বলেন, মিরপুর এলাকায় চলাচল সীমিত করা হয়েছে। শনিবার থেকে ৭৩ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধ যে ভবনে থাকতেন সেখানকার ৩০টি পরিবারকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এমপি বলেন, "ওই এলাকায় ৩০-৪০টি ভবন রয়েছে। সেখানকার অধিকাংশ বাসিন্দা মসজিদে নামাজ পড়তে যান। আমরা ওই মসজিদে যাওয়া সকলকে চিহ্নিত করে পরীক্ষা করার পরিকল্পনা করেছি। কিন্তু এতে সময় লাগবে। এ বিষয়ে আমরা আইইডিসিআর-এর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছি।"

দারুসসালাম জোনের অতিরিক্ত ডেপুটি কমিশনার (এডিসি) মাহমুদা আফরোজ লাকি বলেন, "রবিবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু হয়। শুক্রবার মারা যাওয়া ব্যক্তির পাশের ভবনে থাকতেন তিনি। আমরা টোলারবাগ এলাকার সবাইকে এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। টোলারবাগের বাসিন্দারাও অতি প্রয়োজন ছাড়া বাসা থেকে বের হচ্ছেন না।" 

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এডিসি বলেন, "এটাকে লকডাউন বলা যাবে না। টোলারবাগে বাসিন্দারা স্বেচ্ছায় বাসা থেকে বের না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমরা তাতে সমর্থন দিয়েছি।"

About

Popular Links