Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৩৭ জনের মৃত্যু

এর মধ্যে গত ৩০ ও ৩১ মার্চ ফ্লু জাতীয় উপসর্গ নিয়ে ১৪ জনের মৃত্যু হয়

আপডেট : ০৬ এপ্রিল ২০২০, ১০:১১ এএম

৮ মার্চের পর থেকে দেশের ২৪টি জেলায় করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা ট্রিবিউনের জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

এর মধ্যে শুধুমাত্র ৩০ ও ৩১ মার্চেই ফ্লু জাতীয় উপসর্গ নিয়ে ঢাকা, সিলেট, পিরোজপুর, বরিশাল, সুনামগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, নোয়াখালী, রংপুর, চাঁদপুর, যশোর, দিনাজপুর ও কুষ্টিয়াতে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।  গত ৩০ মার্চ কেরানীগঞ্জ ও নবাবগঞ্জ উপজেলার দুই ব্যক্তি শ্বাসকষ্ট ও জ্বর নিয়ে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন।

পিরোজপুরে ভান্ডারিয়া উপজেলায় ১৭ বছর বয়সী এক যুবক জ্বর, ঠান্ডা, কাশি ও গলা ব্যথা নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন বলে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা. এইচ এম জহিরুল ইসলাম।

তিনি জানান, মৃত্যুর পর ওই রোগীর নমুনা রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়। এছাড়া এলাকবাসী ওই এলাকা লকডাউন করে দেন। সিলেটে একই ধরনের উপসর্গ নিয়ে ৩১ মার্চ শহীদ শামসুদ্দিন আহমেদ হাসপাতালে এক কিশোরীর মৃত্যু হয়।

এছাড়া শরীয়তপুর, মুন্সীগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, বগুড়া, টাঙ্গাইল, জামালপুর, খুলনা, সাতক্ষীরা, কুমিল্লা, নাটোর, নওগাঁ ও নেত্রকোনায় একই ধরনের উপসর্গ নিয়ে ২৩ রোগীর মৃত্যু হয়।

এসব রোগীর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য কোভিড-১৯ শনাক্ত করার নির্ধারিত ল্যাবে পাঠানো হয়। পরীক্ষায় কয়েকজনের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। বাকীদের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল এখনও প্রকাশ করা হয়নি।     

এদিকে গত রবিবার পর্যন্ত সারাদেশে এ পর্যন্ত ৮৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত করার কথা জানিয়েছে আইইডিসিআর। এর মধ্যে রবিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়।

এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ৯ জনে।

About

Popular Links