Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সাইকেলযোগে ধানসিঁড়ি'র খোঁজে এসে হতাশ ভারতের কৃষ্ণেন্দু

সাইকেল চালিয়ে বাংলাদেশ ভ্রমনে এসে ভারতের কৃষ্ণেন্দু বেরী বরিশালে জীবনানন্দকে তেমন করে খুজে পাননি।

আপডেট : ২৫ আগস্ট ২০১৮, ০১:৪৮ পিএম

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরের কৃষ্ণেন্দুসহ পাঁচ বন্ধু মিলে ‘বিশ্ব উষ্ণায়নের বিরুদ্ধে গাছ লাগান, কন্যা সন্তানকে বাঁচান এবং বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতিকে ভালোবাসুন’ এসব শ্লোগান নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে সাইকেলযোগে বাংলাদেশে সৌহার্দ ও সংহতি-ভ্রমণে এসেছেন।   

ভ্রমণ পিয়াসী কৃষ্ণেন্দু পেশায় একজন ব্যবসায়ী। ব্যবসার কাজে এর আগেও ৬/৭ বার বাংলাদেশে এসেছেন। 

এবারে যাত্রার শুরতেই মনে কবি জীবনানন্দ দাশের জন্মভিটা দেখবেন বলে পরিকল্পনা করেছিলেন। তাই সাইকেল চালিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর থেকে বরিশালে জীবনানন্দ দাশের বাড়ি দেখতে চলে আসেন কৃষ্ণেন্দু। 

শুক্রবার (২৪ আগস্ট) রাতে কবি জীবনানন্দ দাশের প্রতি এমন ভালোবাসার কথা জানিয়ে কৃষ্ণেন্দু বলেন গত ৩ আগস্ট আরো চার বন্ধুর সঙ্গে রওনা দিয়ে ১১ আগস্ট হরিদাসপুর-বেনাপোল দিয়ে সীমান্ত অতিক্রম করে নড়াইল-কালিয়া-টুঙ্গীপাড়া মাওয়া হয়ে ঢাকায় পৌঁছান।  

পরে ঢাকা থেকে অন্য সবাই ফিরে গেলেও কৃষ্ণেন্দু জীবনানন্দ দাশের বাড়ি দেখবেন বলে বরিশালে ছুটে আসেন। ওঠেন রামকৃষ্ণ মিশনের বরিশাল শাখার অতিথিশালায়। 

কৃষ্ণেন্দু জানান, ‘১২ বছর বয়সে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ার সময় মায়ের কাছে অনেক শুনেছেন জীবনানন্দ দাশের কবিতা। জীবনানন্দ দাশের লেখা অনেক কবিতা নিজেও পড়েছেন। তখন থেকেই তার ইচ্ছেছিলো কবির জন্মভিটা দেখতে যাবেন। একবার হলেও ধানসিঁড়ি নদীর পরশ ছুয়ে দেখবেন। আর তাই জীবনানন্দের টানে ছুটে এসেছেন বরিশালে। 

বাংলাদেশের সব কিছু তাকে মুগ্ধ করলেও জীবনানন্দের বাড়িতে গিয়ে কিছুটা হতাশ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কৃষ্ণেন্দু। 

তিনি জানান, যে জীবনানন্দ দাশের বই বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দেখছেন, পড়ছেন, তার বাড়িতে শুধু ‘ধানসিঁড়ি’ নাম ফলকের গেট ছাড়া কিছুই নেই। আবার তার নামের লাইব্রেরিতে জীবনানন্দ-চর্চা সম্পর্কিত সম-সাময়িক কিছু নেই। আসলেই এগুলো খুবই দুঃখজনক।  

About

Popular Links