Sunday, June 16, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ডা. মঈনকে মাশরাফির ‘স্যালুট’

দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত  প্রথম চিকিৎসক হিসেবে বুধবার সকালে মৃত্যু হয় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দীনের

আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০২০, ০৭:৪৪ পিএম

করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় নিয়োজিত হয়ে প্রথম চিকিৎসক হিসেবে বুধবার সকালে মৃত্যুবরণ করেছেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মঈন উদ্দীন।

তার মৃত্যুতে দেশের সর্বস্তরের মানুষ শোক জানিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ডা. মঈনের এই আত্মত্যাগ প্রশংসিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফাইড পেজে এই সম্মুখসারির যোদ্ধাকে “স্যালুট” জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাও।

ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, “সবাইকে শোকে ভাসিয়ে চলে গেলেন এক মহৎ প্রাণ ডাক্তার! করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গতকাল (বুধবার) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক মানবিক ডা. মঈন উদ্দীন চলে গেলেন না ফেরার দেশে! তিনি ছিলেন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ফ্রন্ট লাইনের যোদ্ধা। তার এই মৃত্যু হৃদয় বিদীর্ণ করার মতো।

<iframe src="https://www.facebook.com/plugins/post.php?href=https%3A%2F%2Fwww.facebook.com%2FOfficial.Mashrafe%2Fposts%2F3123448337721296&width=500" width="500" height="752" style="border:none;overflow:hidden" scrolling="no" frameborder="0" allowTransparency="true" allow="encrypted-media">

মাশরাফি আরও লেখেন, “বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের ছোবলে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশও আক্রান্ত। দেশের এই মহাক্রান্তিকালে ডা. মঈন ছিলেন দেশের মানুষের জন্য আত্মোৎসর্গীকৃত। মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত একজন মানবসেবী হিসেবে মানুষের সেবা করে গেছেন তিনি। নিজের জীবনের সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে মানুষকে তিনি চিকিৎসাসেবা দিয়ে গেছেন। মানুষের প্রতি, দেশের প্রতি তার এই আত্মত্যাগ শব্দ-বাক্যে প্রকাশের মতো নয়। মানবতার জয়গান গাওয়া ক্রান্তিকালের এই যোদ্ধাকে নিশ্চয় গোটা জাতি আজীবন পরম শ্রদ্ধায় স্মরণ করবে।”

“আমি তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। সবশেষে আমি এই বীরযোদ্ধাকে জানাচ্ছি- স্যালুট,” যোগ করেন ম্যাশ।

গত ৫ এপ্রিল করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর সহকর্মীদের পরামর্শে নিজ বাসায় কোয়ারেন্টাইনে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন ডা. মঈন। পরে তার স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ায় ৭ এপ্রিল শহীদ শামসুদ্দিন হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানেও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় ৮ এপ্রিল তাকে ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়া হয়।

About

Popular Links