Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘রান্না খারাপ হওয়ায়’ স্ত্রীকে গাছে বেঁধে শরীরে রডের ছ্যাঁকা

এ ঘটনায় ওই নারীর বাবার করা মামলায় তার স্বামী ও ভাসুরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

আপডেট : ২৮ মে ২০২০, ০৫:৩৭ পিএম

রান্না খারাপ হওয়ার অভিযোগ তুলে স্ত্রীকে লিচু গাছে বেঁধে শরীরের বিভিন্ন স্থানে লোহার রড গরম করে ছ্যাঁকা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে জয়পুরহাটের আক্কেলপুরের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। নির্যাতিত নারীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা ঘরের দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

বুধবার (২৭ মে) রাতে আক্কেলপুর পৌর শহরের শ্রীকৃষ্টপুর স্কুলপাড়া মহল্লায় নির্যাতনের ঘটনাটি ঘটে। 

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই নারীর বাবার করা মামলায় স্বামী শাকিল হোসেন ও ভাসুর আসলাম হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

নির্যাতনের শিকার নারী বলেন, ‘‘তিন বছর আগে আমার বিয়ে হয়েছে। স্বামী রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর-শাশুড়ি আমাকে সহ্য করতে পারতেন না। সে কারণে প্রায়ই স্বামীর হাতে নির্যাতিত হতে হতো। বুধবার রাতে বাড়িতে ফিরে হঠাৎ করেই ‘রান্না খারাপ হয়েছে’ বলে শাকিল আমাকে মারতে মারতে বাড়ির আঙিনায় লিচুগাছ তলায় নিয়ে যান। পিঠমোড়া করে গাছে বেঁধে লোহার রড গরম করে দুই গাল, হাতে ও পায়ে ছ্যাঁকা দেওয়া হয়। যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে চিৎকার দিয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলি।”

এ বিষয়ে পৌর এলাকার সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম বলেন, ওই নারীকে প্রায়ই নির্যাতন করা হতো বলে শুনেছি। বুধবার রাতে লিচু গাছে বেঁধে শরীরে ছ্যাঁকা দিয়েছে তার স্বামী।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক নাজমুল হক বুধবার রাতে বলেন, ওই নারীর দুই গালে এবং হাত-পায়ে ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। 

অভিযুক্ত স্বামী শাকিল হোসেন বলেন,“দুই দিন আগে আমার মোবাইল ফোনে কল দিয়ে একজন ছেলে আমার স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিল। আজকে আবার ওই নম্বর থেকে মিসড কল এসেছিল। এ কারণে তাকে লিচু গাছের সঙ্গে বেঁধে নিড়ানি গরম করে ছ্যাঁকা দিয়েছি।”

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু ওবায়েদ বলেন, এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার থানায় নির্যাতিত গৃহবধুর বাবা বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে শাকিল হোসেন ও আসলাম হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। 

 

     

About

Popular Links