Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পিটিয়ে, গরম পানি ঢেলে, শুকনা মরিচের গুড়া ছিটিয়ে সৎমাকে হত্যা

এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট চার নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

আপডেট : ০৫ জুলাই ২০২০, ০৩:০৯ পিএম

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার রাধাগঞ্জ ইউনিয়নে কলসুম বেগম (৬০) নামে এক নারীকে পিটিয়ে, শরীরে গরম পানি ঢেলে ও শুকনা মরিচের গুড়া ছিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার সৎ ছেলে-মেয়েদের বিরুদ্ধে।

শনিবার (৪ জুলাই) রাতে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট  চার নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত ওই নারী রাজিন্দারপাড় গ্রামের সবর আলী সিকদারের দ্বিতীয় স্ত্রী।

জানা গেছে, শনিবার সকালে ইউনিয়নের রাজিন্দারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ওই নারী।

এ ঘটনায় কোটালীপাড়ায় থানায় ৭ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে নিহতের স্বজনরা।

কলসুম বেগমের ভাই স্কুল শিক্ষক কালাম ফকির জানান, সৎ ছেলেদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিলো কলসুমের। শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে নিহত কলসুমকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য সৎ ছেলে রিপন সিকদার, আলাউদ্দিন সিকদার ও তার স্ত্রী-মেয়ে মিলে কলসুমের ওপর হামলা করে। এসময় পিটিয়ে তার মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। এরপর গায়ে গরম পানি ঢেলে শুকনা মরিচের গুড়া ছিটিয়ে দেয় তারা। কলসুমের নিজের দুইছেলে ও ছেলের বউ তাকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে আসলে তাদেরও মারধরের পরে শরীরে গরমপানি ঢেলে মরিচের গুড়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়।

নিহতের ভাই আরও জানান, তার বোন কলসুমকে উদ্ধার করে প্রথমে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও বিকেলে খুমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তার বোন।

কোটালীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ লুৎফর রহমান বলেন, “এ ঘটনায় শনিবার রাতেই ৭ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। রাতেই অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে ৪ নারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  ঘটনার তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডটি হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 

About

Popular Links