Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিদ্যুতের ২০ হাজার মেগাওয়াট মাইলফলক স্পর্শে আলোক উৎসবের আয়োজন

তবে বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর স্থাপিত উৎপাদন ক্ষমতা ১৬ হাজার ৫৬২ মেগাওয়াট হলেও বাস্তবে সরবরাহ করা যায় গড়ে ১৬ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। এই অবস্থায় দেশে বর্তমানে গড়ে সাড়ে ১০ হাজার থেকে ১১ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করে সরবরাহ করা হচ্ছে।

আপডেট : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৫:১৪ পিএম

দেশের বিদ্যুৎখাত ২০ হাজার মেগাওয়াটের মাইলফলক স্পর্শ করতে যাচ্ছে বলে সরকার দাবি করেছে। এই উপলক্ষ্যে আজ শুক্রবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর তিনটি পয়েন্টে বর্ণিল আলোক উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। হাতিরঝিলের পুলিশ প্লাজায় সন্ধ্যা ৭টায় এই আলোক উৎসবের উদ্বোধন করবেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। এছাড়া সদরঘাট ও বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারেও এই আলোক উৎসব আয়োজন করা হবে। আতশবাজি পুড়িয়ে উদযাপন করা হবে এই আলোক উৎসব।

এর আগে সরকার ২০১৬ সালে আলোক উৎসবের আয়োজন করেছিল। ওই সময় বলা হয়েছিল দেশের বিদ্যুৎখাত ১৫ হাজার মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতার মাইলফলক স্পর্শ করেছে।

বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমদ কায়কাউস জানান, দেশের ১২৪টি বিদ্যুৎকেন্দ্রের স্থাপিত উৎপাদন ক্ষমতা ১৭ হাজার ৪৩ মেগাওয়াট। এরসঙ্গে ক্যাপটিভ পাওয়ার প্ল্যান্টগুলো থেকে আরও ২ হাজার ৮০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাচ্ছে। নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে প্রায় ২৯০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছে। সে হিসেবে মোট উৎপাদন ক্ষমতা দাঁড়ায় ২০ হাজার ১৩৩ মেগাওয়াট। এছাড়া আগামী ১০ সেপ্টেম্বর ভারত থেকে আসছে আরও ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ।

তবে বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর স্থাপিত উৎপাদন ক্ষমতা ১৬ হাজার ৫৬২ মেগাওয়াট হলেও বাস্তবে সরবরাহ করা যায় গড়ে ১৬ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। এই অবস্থায় দেশে বর্তমানে গড়ে সাড়ে ১০ হাজার থেকে ১১ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করে সরবরাহ করা হচ্ছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) থেকে শুরু হয়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সপ্তাহ ২০১৮। ‘অনির্বাণ আগামী’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত এই সপ্তাহের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠান চলবে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। এ উপলক্ষে নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে।


About

Popular Links