Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অথৈ পানি আর সবুজে আচ্ছন্ন বামনাইল বিলে পর্যটকের আনাগোনা

গ্রামীণ শান্ত নিরিবিলি পরিবেশে বিলের মনোরম দৃশ্য আর নদীতে নৌকা ভ্রমণ এখানকার প্রধান আকর্ষণীয় দিক

আপডেট : ১৮ আগস্ট ২০২০, ০৩:৩৮ পিএম

চারিদিকে সবুজে আচ্ছন্ন গ্রাম, মাঝখানে ছলছল করা বিলের অথৈ পানি দোল খাচ্ছে বাতাসে। প্রান্তে আকাশ ছুঁয়েছে বিলের পানি। পাশ দিয়েই বয়ে গেছে বেগবতি নদী। সবমিলিয়ে অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। 

ঝিনাইদহ সদর উপজেলা শহর থেকে থেকে ২৬ কিলোমিটার ও কালীগঞ্জ উপজেলা শহর থেকে ১৮টি কিলোমিটার দূরে ফুরসন্ধি ইউনিয়নে বিলটির অবস্থান, নাম বামনাইল বিল। 

বিলটিকে ঘিরে গড়ে উঠেছে মৌসুমী পর্যটন কেন্দ্র। 

প্রতিদিন অসংখ্য ভ্রমণ পিপাসু মানুষ বামনাইল বিলের মনোরম সৌন্দর্য উপভোগ করতে ভিড় করছে। ছোট নৌকায় ভ্রমণ করছে বিল ও বেগবতি নদীতে। 

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বামনাইল বিলটি যশোর, ঝিনাইদহ ও মাগুরা জেলার সীমান্ত মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত। এটি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ফুরসন্ধি ইউনিয়নের বামনাইল গ্রামের বেশিরভাগ অংশ জুড়ে। সে কারণেই বিলটির নাম হয়েছে বামনাইলের বিল। বিলটি দৈর্ঘ্য ৫ কিলোমিটার ও প্রস্থ ৩ কিলোমিটার।

ভ্রমণে আসা বেশিরভাগই যুব। ঢাকা ট্রিবিউন

বর্ষা মৌসুমে খাল, বিল, নদীতে পানি থাকায় চারিদিকে এক নয়নাভিরাম দৃশ্যের অবতরণা হয়। চলতি বছরও প্রচুর বৃষ্টিপাতে বেড়েছে বিলের পানি। চারিদিকে শুধু সবুজের সমারোহ বিলের অপরূপ সৈন্দর্য টানছে অসংখ্য প্রকৃতি প্রেমীদের। নৌকা ভাড়া করে বিলের বুকে ছড়িয়ে পড়ছেন তারা। এদের বেশিরভাগই যুব বলে জানান স্থানীয়রা। 


আরও পড়ুন - ঘুরে আসুন ভুতিয়ার পদ্মবিল


কালীগঞ্জ উপজেলার তেঘুরিহুদা গ্রামের শাকিল ও সালাম নামের দুই যুবক জানান, তাদের বাড়ির কাছেই এমন সুন্দর জায়গা আছে তা তিনি জানতেন না। লোকমুখে খবর পেয়ে বিল দেখতে এসেছেন। বিলটি দেখতে অপরূপ। যে কোনো লোক বিলটি দেখতে মুগ্ধ হবেন। 

তিনি জানান, প্রতিদিন দলবদ্ধভাবে অনেকেই আসছেন বিল ভ্রমণে। 

কালীগঞ্জ থেকে বিলটি দেখতে এসেছেন শিক্ষক মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে একটু নিরিবিলি পরিবেশে বেড়াতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। গ্রামীণ শান্ত নিরিবিলি পরিবেশে বিলের মনোরম দৃশ্য আর নদীতে নৌকা ভ্রমণ এখানকার প্রধান আকর্ষণীয় দিক।

বিলের মাছ স্থানীয়দের অনেকেরই কর্মসংস্থানের উৎস। ঢাকা ট্রিবিউন

নাটোপাড়া গ্রামের খলিলুর রহমান (খলিল চৌকিদার) জানান, যশোর ও ঝিনাইদহ শহর থেকে প্রতিদিন অনেকে বামনাইলের বিলে আসছেন। কেউবা নৌকা ভ্রমণ করছেন। অনেকে নদীতেও নৌকা চড়ে উপভোগ করছেন মনোরম দৃশ্য। শহরের লোকজন গ্রামের বিলটি দেখতে আসায় তাদের কাছে অনেক ভাল লাগছে বলেও তিনি জানান।

ঝিনাইদহের ফুরসন্ধি ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সুশেন শিকদার বলেন, গত কোরবানির ঈদের পর থেকে ঝিনাইদহ, কালীগঞ্জ, যশোরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে দর্শনার্থীরা এখানে আসছে। তারা নৌকা ও ট্রলারে করে সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে বিলের মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এটা দেখে আমাদেরও ভাল লাগছে। এ সময় তিনি ভ্রমণ পিপুসাদের যাবতীয় নিরাপত্তা দেবার প্রতিশ্রুতি দেন।


আরও পড়ুন - এডিনবার্গ ডায়েরি: পর্ব ২

About

Popular Links