Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

স্বামীকে ‘আপত্তিকর অবস্থায়’ আটক, পরদিন মিলল স্ত্রীর লাশ

এই দম্পতির  সোয়াদ হোসেন নামের এক বছরের একটি ছেলে রয়েছে।

আপডেট : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৭:৫০ পিএম

যশোর সদর উপজেলায় স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় সালমা খাতুন (২০) নামের এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। আজ রোববার সকালে উপজেলার তপসীডাঙ্গা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত সালমা মণিরামপুর উপজেলার ষোলখাদা এলাকার বজলুর রহমানের মেয়ে। বছর তিনেক আগে তার সঙ্গে তপসীডাঙ্গার রডমিস্ত্রি জামাল হোসেনের বিয়ে হয়। তাদের সোয়াদ হোসেন নামের এক বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে।

ঘটনার পর থেকে জামাল হোসেন পলাতক রয়েছেন। 

নিহতের মামাতো বোন রাবেয়া বেগম জানান, সালমা তাকে বহুবার বলেছেন, জামালের সঙ্গে তার ভাবি কাজল বেগমের পরকীয়া রয়েছে। আজ ভোরে সালমা তাকে মোবাইলে বলেন, শনিবার রাতে জামাল ও কাজল বেগমকে আপত্তিকর অবস্থায় লিপ্ত অবস্থায় হাতেনাতে ধরেন। ওই রাতেই জামাল তাকে মারপিট করেন।

রাবেয়া আরও জানান, রোববার সকাল ৯টার দিকে তিনি খবর পান সালমাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। 

নিহতের চাচা বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘আমরা আগে থেকেই জানতাম জামালের সঙ্গে তার ভাবির পরকীয়া চলছে। এই কারণেই সে আমার ভাতিজিকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ ঘরের আড়ার সাথে ওড়না জড়িয়ে ঝুলিয়ে রাখে। পরে আমরা ঘটনাস্থলে এসে পুলিশকে খবর দেই।’

যশোর সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এম আবদুর রশিদ বলেন, সালমা খাতুনকে হত্যা করা হয়েছে না কি-আত্মহত্যা তা বলা যাবে না। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন এলে বিষয়টি পরিস্কার হবে।

কোতয়ালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাইদুর রহমান বলেন, ‘খবর শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি নিহতের লাশ মাটিতে পড়ে রয়েছে। এলাকাবাসী বলছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। আর নিহতের পরিবারের দাবি, তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে আনা হয়েছে।’ 
 
 

About

Popular Links