Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে ভোটার তালিকা থেকে বাদ

এই ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:০০ পিএম

মেহেরপুরের গাংনীতে জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেয়ার অভিযোগ উঠছে উপজেলা নির্বাচন অফিসের বিরুদ্ধে। কুষ্টিয়ায় জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতির রেশ কাটতে না কাটতে গাংনী নির্বাচন অফিসের এই ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সচেতন মহল এ ঘটনায় নির্বাচন কমিশনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের উদাসীনতাকে দায়ী করেছেন। 

তেঁতুলবাড়িয়া ইউনিয়নের তেঁতুলবাড়িয়া গ্রামের শিলিল পাড়ার মৃত দিদার শিলিলের ছেলে প্রতিবন্ধী নজরুল ইসলাম জানান, “ব্যক্তিগত একটি কাজে ইউনিয়ন পরিষদে গেলে জানতে পারি নির্বাচন কমিশনের ওয়েব পোর্টালে আমার কোনো তথ্য নেই। এ বিষয়ে নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে জানতে পারি আমাকে মৃত দেখিয়ে ভোটার তালিকা থেকে আমার সব তথ্য অপসারণ করা হয়েছে।”

পরে ১০ সেপ্টেম্বর স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র সংযুক্ত করে নতুন করে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংগ্রহের জন্য গাংনী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে লিখিত আবেদন করা হয়।

নজরুল ইসলামের কাছে জাতীয় পরিচয়পত্র থাকলেও তাকে মৃত দেখিয়ে তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে। নজরুলের পরিবারের দাবি, সম্পত্তি হাতিয়ে নেয়া কিংবা অন্য কোনো অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল করতে কোনো একটি চক্র এই কাজ করেছে।

তেঁতুলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “নজরুল ইসলামকে নতুন জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার জন্য আবেদন করা হয়েছে।”

মেহেরপুর সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কবির উদ্দীন বলেন, “মৃত্যুজনিত কারণ ছাড়া অন্য কোনো কারণে কারও নাম ভোটার তালিকা থেকে বাদ যায় না । প্রতি বছর ভোটার তালিকা হালনাগাদ করার নিয়ম রয়েছে। হালনাগাদ করার সময় কোন ডিজিট ভুলের কারণে বা তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজারদের তদারকির অভাবে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।” 

তিনি আরও বলেন, “আবেদন পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং ঘটনার প্রকৃত কারণ জানা যাবে। রবিবারেই এ বিষয়টি ঢাকা অফিসকে অবগত করেছি।”

“২০১৪ সালের পর নজরুল ইসলাম কোনো কাজে ভোটার আইডি কার্ড ব্যবহার করেননি। হয়তো এই কারণে তাকে মৃত হিসেবে গণ্য করা হয়েছিল,” যোগ করেন তিনি।

About

Popular Links