Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নিখোঁজের ১৩দিন পর মিলেছে স্কুল শিক্ষকের লাশ

লাশটি বিভৎস হয়ে আছে। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে ময়না তদন্ত শেষে লাশ নিয়ে পারিবাবিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১:১০ পিএম

খুলনায় ১৩ দিন নিখোঁজ থাকার পর স্কুল শিক্ষক কাজী তাফসির হোসেন তয়নের (৩২) লাশ মিলেছে পুলিশ লাইনের পেছনের একটি ডোবায়। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে থেকে উদ্ধার করা হয় ওই মৃতদেহ। চলতি বছরের ২৮ আগষ্ট থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন।  

এ বিষয়ে থানায় প্রথমে একটি জিডি এবং পরে মামলা করা হয়েছিল।

খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরদার মোশাররফ হোসেন জানান, ‘নয়ন নিখোঁজ হওয়ার পর তার বড় মামা কামরুল আহসান ওইদিনই একটি জিডি করেন। পরে তয়নের বাবা তোতা কাজী গত ৯ সেপ্টেম্বর একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর সাইফুল নামে এক যুবককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে তয়নকে হত্যা করার পর লাশ লুকিয়ে রাখার কথা স্বীকার করে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকালে পুলিশ লাইনের পেছনের আনসার উদ্দিন সড়কের পাশের একটি ডোবা থেকে তয়নের লাশ উদ্ধার করা হয়, যা কোমর পানিতে ২টি বাঁশের খুটিতে বাধা ছিল এবং বুকের ওপর সিমেন্টের বড় ২টি চাকা দিয়ে চাপা দেওয়া ছিল। লাশটি গলে গেছে। লাশের পেট ফাঁরার চিহ্ন পাওয়া গেছে।’ 

সাইফুলের জবানবন্দী অনুযায়ী, ২৮ আগষ্ট তয়নকে তারা মুজগুন্নী এলাকা থেকে নিয়ে যায়। ওইদিন রাতেই মাথায় আঘাত করার পর তয়ন মারা যায়। পরে তার লাশ লুকিয়ে রাখতে এই ডোবায় রাখা হয়। এ প্রসঙ্গে ওসি জানান, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চয়নের মামা ফটোসাংবাদিক কামরুল আহসান জানান, তয়নের লাশ গলে গেছে। পেট ফাড়া হয়েছে। মাথায় আঘাত করা হয়েছে। লাশটি বিভৎস হয়ে আছে। খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে ময়না তদন্ত শেষে লাশ নিয়ে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে। 

তিনি আরও জানান, তয়ন স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্টেন স্কুলের শিক্ষক ছিলেন। তাকে অপহরণ করার পর হত্যা করা হয়েছে। 


About

Popular Links