Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গ্রীষ্মকালীন টমেটোর আবাদ লাভজনক, সাতক্ষীরায় মাঠ দিবস

সাতক্ষীরায় ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৫৭ হেক্টর জমিতে গ্রীষ্মকালীন টমেটোর আবাদ হয়েছে। যা গত অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ৫৮% বেশি

আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৩৩ পিএম

সুস্বাদু ও উচ্চ পুষ্টিগুণ সম্পন্ন সবজি হিসেবে সারাবছরই থাকে টমেটোর চাহিদা। শীতকালীন ফসল হলেও বর্তমানে গ্রীষ্মকালীন টমেটোর জাত উদ্ভাবন হওয়ায় বারো মাসই টমেটো চাষ করে লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা।

তাই সাতক্ষীরায় বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট উদ্ভাবিত গ্রীষ্মকালীন হাইব্রিড টমেটো-৪ ও ৮ জাতের আবাদ সম্প্রসারণে কৃষক উদ্বুদ্ধকরণের লক্ষ্যে মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট আয়োজনে জেলার কলারোয়া উপজেলার বাটরা গ্রামে এই মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ।

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. নাজিমুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন

কৃষি মন্ত্রণালয়ের এক্সপার্ট পুলের সদস্য হামিদুর রহমান, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার, কৃষিবিদ ড. সোহেলা আক্তার, সাতক্ষীরা-১ আসনের সংসদ সদস্য মুস্তফা লুৎফুল্লাহ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. বদিউজ্জামান, কলারোয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী জেরিন কান্তা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সাতক্ষীরায় ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৫৭ হেক্টর জমিতে গ্রীষ্মকালীন টমেটোর আবাদ হয়েছে। যা গত অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ৫৮% বেশি।

পরে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ গ্রীষ্মকালীন টমেটোর ক্ষেত পরিদর্শন করেন।

এ সময় সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বলেন, গ্রীষ্মকালীন টমেটোর আবাদ বেশ লাভজনক। এ জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে গ্রীষ্মকালীন টমেটোর আবাদ সারাদেশে ছড়িয়ে দেওয়া হবে।

About

Popular Links