Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ধর্ষণে অভিযুক্ত এএসআইয়ের ছবি তুলতে গিয়ে পুলিশি হামলার শিকার সাংবাদিকরা

পাশাপাশি আদালতের কলাপসিবল গেট বন্ধ করে দিয়ে ফটো সাংবাদিকদের সঙ্গে চরম অসৌজন্যমূলক আচরণ ও গালিগালাজ করেন

আপডেট : ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৬:২৭ পিএম

রংপুরের হারাগাছে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষনের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রায়হানুল ইসলামকে বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) রংপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পিবিআই। আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আগামী ৪ নভেম্বর রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

এদিন বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ধর্ষণ কাণ্ডে অভিযুক্ত এএসআই রায়হানুলকে আদালতে নিয়ে যাচ্ছিল পুলিশ। এ সময় চারদিক থেকে তাকে এমনভাবে ঘিরে রাখা হয় যাতে সাংবাদিকরা ছবি তুলতে না পারেন। সাংবাদিকরা সামনে যাওয়ার চেষ্টা করলে কোনো কারণ ছাড়াই একুশে টিভির ক্যামেরাম্যান আলী হায়দার রনি, একাত্তর টিভির রাফি এবং জিটিভির মুনীরকে ধাক্কা দিয়ে সিঁড়িতে ফেলে দেয়। পড়ে গিয়ে আহত হন সাংবাদিকরা।


আরও পড়ুন- পুলিশের এএসআইয়ের নেতৃত্বে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ


 এছাড়াও যমুনা টিভিসহ বেশ কয়েকটি টেলিভিশনের ক্যামেরাম্যানদেরও ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় পুলি। 

ভুক্তভোগী সাংবাদিকদের অভিযোগ, এরপর আদালতের কলাপসিবল গেট বন্ধ করে দিয়ে ফটো সাংবাদিকদের সঙ্গে চরম অসৌজন্যমূলক আচরণ ও গালিগালাজ করেন।

পরে পিবিআই রংপুরের পুলিশ সুপার জাকির হোসেন সাংবাদিকদের জানান, তারা আসামিকে আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছেন। বিচারক আগামী ৪ নভেম্বর রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করেছেন। এরপর রায়হানকে কারাগারে পাঠানো হয়।


আরও পড়ুন- রংপুরে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ: ডিবি পুলিশের এএসআই গ্রেপ্তার


প্রসঙ্গত, রংপুর মেট্রোপলিট্রন ডিবি পুলিশের এএসআই রায়হানুল ইসলাম ওরফে রাজুর নেতৃত্বে মহানগরীর হারাগাছ থানার ক্যাদারের পুল এলাকায় একটি বাড়িতে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে পুলিশ সদস্য রাজুসহ ২ জনের নাম উল্লেখ করে ধর্ষণ মামলা করেন। 

বুধবার অভিযুক্ত রায়হানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

About

Popular Links