Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

করোনাভাইরাস: রেস্টুরেন্ট, মুদি দোকানের চেয়েও নিরাপদ হতে পার বিমানযাত্রা

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এ তথ্য জানিয়েছেন

আপডেট : ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১২:১৫ পিএম

বিমানযাত্রার থেকে কেনাকাটা করা বা রেস্টুরেস্টে খাওয়ার সময় ফলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি বেশি থাকে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের টি এইচ চ্যান স্কুল অব পাবলিক হেলথ-এর গবেষকরা একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেন। “এভিয়েশন পাবলিক হেলথ ইনিশিয়েটিভ” নামে ওই গবেষণাপত্রটিতে বলা হয়েছে রেস্টুরেন্টে গিয়ে খাওয়া কিংবা দোকানে গিয়ে কেনাকাটার তুলনায় বিমানযাত্রা হতে পারে অনেকটাই নিরাপদ।

গবেষকরা জানিয়েছেন, বিমানযাত্রার সময় সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে বারবার হাত ধোওয়া, মাস্ক পরে থাকাসহ সকল ব্যবস্থা থাকে। যা করোনাভাইরাসের ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে আনে। 

তবে নিয়মিত বিমান পরিষ্কার রাখা এবং স্যানিটাইজ করার ওপর জোর দেন বিজ্ঞানীরা। এছাড়া বিমানে যাতে সবসময় ভেন্টিলেশনের ব্যবস্থা থাকে, তা দেখতে হবে। পাশাপাশি বিমানে ও বিমানবন্দরে যাতে পর্যাপ্ত হাওয়া চলাচল করতে পারে, সেদিকেও নজর রাখতে হবে। এইসব সুরক্ষাবিধি জোরদার করলে বিমানযাত্রায় কোভিডে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি রেস্টুরেন্টে খাওয়া বা মুদির দোকানে যাওয়ার থেকে অনেকটাই কমিয়ে আনা যাবে বলে দাবি গবেষকদের।

হার্ভার্ডের গবেষণাপত্রে করোনাভাইরাসের নিয়ন্ত্রণে এর বিপদ নিয়ে জনসচেতনতা বাড়ানোর বিষয়েও জোর দেওয়া হয়েছে। এনিয়ে সাধারণ মানুষকে যথাসম্ভব শিক্ষিত করার প্রয়োজন রয়েছে বলেও মনে করেন গবেষকরা। গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, ‘বিমানযাত্রার সময় সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে কী কী বিষয়ে সচেতন থাকা উচিত, তা নিয়ে  প্রচার চালাচ্ছে বিমানসংস্থা এবং বিমানবন্দরগুলি। এর মধ্যে বুকিং বা চেক-ইনের সময় অথবা উড়ানে জনস্বাস্থ্যের সুরক্ষার দিকগুলি তুলে ধরা হয়েছে। বিমানকর্মীদের এ বিষয়ে নিয়মিত ট্রেনিংও দেওয়া হয়। কোনও যাত্রী কোভিড-সন্দেহভাজন হলে তাঁকে চিহ্নিত করা বা আইসোলেট করাও সেই ট্রেনিংয়ের অঙ্গ।’


About

Popular Links