Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আমরা কি জিম্বাবুয়ে : কাদের

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘আমাদের বিকল্প কী? আমাদের বিকল্প হচ্ছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি।'

আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৪৮ পিএম

জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশে নির্বাচনের দাবি প্রসঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আমরা কি জিম্বাবুয়ে?’ 

আজ রোববার দুপুরে ইনস্টিটউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স (আইডিইবি) কাউন্সিল হলে সংগঠনটির ৪১তম কাউন্সিল অধিবেশনে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা কি যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া, আফগানিস্তান, সোমালিয়া, আমরা কি সাউথ সুদান, কঙ্গো, ইরাক, আমরা কি জিম্বাবুয়ে? বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে সংবিধান অনুসারেই নির্বাচন পরিচালিত হবে। এখানে কোনও ব্যত্যয় করার সুযোগ নেই। শেখ হাসিনার সরকারই তত্ত্বাবধান করবে এবং নির্বাচন কমিশনই এ নির্বাচন পরিচালনা করবে।’

সংসদ ভেঙে নির্দলীয় সরকার গঠন, বিচারিক ক্ষমতায় দিয়ে সেনা মোতায়েন, নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনে যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্যের দাবিকে অপ্রাসঙ্গিক, অবান্তর, অপ্রয়োজনীয় ও অসাংবিধানিক উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এখন সংসদ ভেঙে নির্দলীয় সরকার করার তো প্রয়োজন নেই। আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোসহ পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেভাবে নির্বাচন হয়, ঠিক সেভাবেই আমাদের দেশেও নির্বাচন হবে। নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী, এর বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই।’

‘এক-দেড় মাস বাকি আছে। এখন মামাবাড়ির আবদার করলে তো চলবে না। সংসদের শেষ অধিবেশন অক্টোবর মাসের ২০ তারিখের আগেই শেষ হয়ে যাবে। এরপর আর নির্বাচন পর্যন্ত সংসদ বসবে না। এই সংসদের সদস্যদের কোনও ক্ষমতা ও কার্যকারিতা থাকবে না।’

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘আমাদের বিকল্প কী? আমাদের বিকল্প হচ্ছে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি। যাদের দুঃশাসনে ২০০১ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত ছিল। অনেক অত্যাচার, নির্যাতন করেছে, ব্যাড পলিটিক্স ছিল। সেই নির্যাতন ও অন্ধকারে কি কেউ ফিরে যেতে চান? আমরা মনে করি না আমাদের সবকিছু শুদ্ধ, আমাদের ভুলত্রুটিও আছে, কিন্তু ভুলত্রুটি সংশোধনের সৎসাহস শেখ হাসিনার রয়েছে। দলের মধ্যে কেউ অন্যায় করলে তাকে আমরা শাস্তি দিই। কিন্তু আমাদের বিকল্প যাদের ভাবেন, তারা তো নিজেদের লোকদের শাসন করেননি।’

কাদের বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের সময় এখন নেই। এখানে তো বিএনপিরও প্রতিনিধি রয়েছে। সবার সঙ্গে আলোচনা করেই রাষ্ট্রপতি এ নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। নির্বাচন কমিশন স্বাধীনভাবে কাজ করছে।’

যুক্তফ্রন্টের পাঁচ দফা বিএনপির দাবির সঙ্গে মিলে গেছে কিনা সাংবাদিকদের এমন লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা মিলে গেল কিনা তা দেখা আমাদের কোনও বিষয় না। বিএনপি কার সঙ্গে যাবে, কীভাবে যাবে তা আমাদের বিষয় না। আমরা গণমাধ্যমের মাধ্যমে জানতে পেরেছি যুক্তফ্রন্টের নেতারা বলেছেন, বিএনপির প্রধান মিত্র জামায়াতে ইসলামী থাকলে, তারা বিএনপির সঙ্গে যাবে না। এখানে তো আমাদের কোনও মন্তব্য নেই। তবে নতুন নতুন জোট হলে স্বাগত, শত ফুল ফুটুক। গণতন্ত্রতো, অসুবিধা নেই। নতুন নতুন জোট হোক, নির্বাচন করুক।’ বিএনপি মহাসচিবের যুক্তরাষ্ট্র সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘সাহস থাকলে জনগণের কাছে নালিশ করুন। বিদেশে গিয়ে নালিশ করে দেশকে কেন খাটো করছেন। জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণ, বাস্তবে দেখা গেল এমন কোনও আমন্ত্রণ নেই। কী রকম তারা প্রতরণা করে, রাজনীতিতে ছদ্মবেশী প্রতারণা পার্টির নাম বিএনপি।’ 

‘বিএনপি এখন বিদেশিদের কাছে ‘বাংলাদেশ কান্নাকাটি পার্টি’ হয়ে গেছে।’’ বিএনপি নির্বাচনে না এলে যুক্তফ্রন্টই বিএনপির বিকল্প কিনা সাংবাদিকদের এমন লিখিত প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, ‘সেটা আমরা জানি না। তবে আমরা জানি বিএনপি না এলেও এবার প্রতিদ্বন্দ্বীর অভাব নাই, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার ফাঁদ তৈরির কোনও সুযোগ নেই। সবাই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেই এবার নির্বাচিত হবে।’

About

Popular Links