Saturday, June 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জিডিপির প্রবৃদ্ধিতে রেকর্ড, বেড়েছে মাথাপিছু আয়

মন্ত্রী বলেন, ‘এ বছর (গত অর্থবছর) কোনো বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ আঘাত হানেনি। এই প্রবৃদ্ধির জন্য আমরা কৃষি ক্ষেত্রের অসাধারণ সফলতাকে উল্লেখ করতে পারি।' 

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৩৪ পিএম

দেশের ইতিহাসে  ২০১৭-১৮ অর্থবছরে জিডিপিতে সর্বোচ্চ ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধির দেখা পাওয়া গেছে। এ অর্থবছরে আনুমানিক প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছিল ৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

পাশাপাশি মাথাপিছু আয় আগের অর্থবছরের ১ হাজার ৬১০ মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১ হাজার ৭৫১ মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে বলে জানিয়েছে পরিসংখ্যান ব্যুরো।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির এ চূড়ান্ত পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়।

বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এএইচএম মুস্তাফা কামাল সাংবাদিকদের এ বিষয়ে জানান বলে ইউএনবির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। 

মন্ত্রী বলেন, ‘এ বছর (গত অর্থবছর) কোনো বড় ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ আঘাত হানেনি। এই প্রবৃদ্ধির জন্য আমরা কৃষি ক্ষেত্রের অসাধারণ সফলতাকে উল্লেখ করতে পারি। পাশাপাশি শিল্প ও বিদ্যুৎ খাতে ভালো অগ্রগতি হয়েছে।’

গত অর্থবছরে জিডিপিতে কৃষি খাতের অবদান ছিল ১৩ দশমিক ৮২ শতাংশ। এ ছাড়া যেখানেশিল্প ও সেবা খাতে যথাক্রমে ৩০ দশমিক ১৭ এবং ৫৬ শতাংশ অবদান ছিলো বলে জানান মুস্তাফা কামাল।

২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৭ দশমিক ১১ শতাংশ এবং ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ৬ দশমিক ৫৫ শতাংশ জিডিপির প্রবৃদ্ধি ছিল।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও জানান, জিডিপির আকার ২০১৬-১৭ অর্থবছরের ১৯ হাজার ৭৫৮ বিলিয়ন টাকা থেকে বেড়ে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২২ হাজার ৫০৫ বিলিয়ন টাকায় (২৭৪ দশমিক ১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) উন্নীত হয়েছে।

মুস্তফা কামাল বলেন, জিডিপি ও বিনিয়োগের অনুপাতও বেড়েছে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে তা ছিল ৩০ দশমিক ৫১ শতাংশ। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এটা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩১ দশমিক ২৩ শতাংশ। যার মধ্যে ৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ সরকারি এবং ২৩ দশমিক ২৬ শতাংশ বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ।

গত অর্থবছরে জিডিপির তুলনায় জাতীয় সঞ্চয় ২৭ দশমিক ৪২ শতাংশ ছিল বলেও জানান মন্ত্রী।

About

Popular Links