Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জুনের মধ্যেই আসছে আরও ৬ কোটি ডোজ টিকা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (২১ ডিসেম্বর) মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এতথ্য জানান

আপডেট : ২১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:৩৮ পিএম

প্রথম দফায় জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে ভারত থেকে করোনাভাইরাসের তিন কোটি ডোজ টিকা আনার পর আগামী বছরের জুন মাসের মধ্যে কোভ্যাক্সের আওতায় আরও ছয় কোটি ডোজ টিকা পাওয়া যাবে বলে মন্ত্রিসভাকে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সোমবার (২১ ডিসেম্বর) মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী কোভিড-১৯ এর টিকা পাওয়ার অগ্রগতির এসব তথ্য তুলে ধরেন।

পরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সচিবালয়ে এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, “স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন তিনি আশা করছেন, জানুয়ারির শেষ বা ফেব্রুয়ারির প্রথম দিকে (প্রথম দফার তিন কোটি) ভ্যাকসিন পেয়ে যাব। এজন্য গ্রাসরুট লেভেল পর্যন্ত সবাইকে ট্রেনিং দেওয়া শুরু হয়েছে।”

তিনি জানান, ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য যেসব জিনিস ব্যবহার করা হবে, সেগুলো কীভাবে ডিসপোজাল করা হবে সেই ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে। বেসরকারিখাতকে অন্তর্ভুক্ত করে টিকা দেওয়া যায় কিনা এনিয়েও তারা আলোচনা করছেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, “দেশে সম্প্রসারিত টিকা দান কর্মসূচির (ইপিআই) যে ব্যাপক কার্যক্রম আছে, সেটিকে করোনাভাইরাসের টিকা দিতে ব্যবহার করার কথা ভাবা হচ্ছে। তারা হাসপাতালগুলোকে ব্যবহার করতে চাচ্ছেন, প্রাইভেট সেক্টরকেও ব্যবহার করতে চাচ্ছেন। উনি (স্বাস্থ্যমন্ত্রী) বললেন, আরও ছয় কোটি ভ্যাকসিন কোভ্যাক্সের মাধ্যমে মে-জুন মাসের মধ্যে আসবে।”

তিনি আরও বলেন, “আর প্রথম দফায় (ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন) আসছে তিন কোটি ডোজ। দ্বিতীয় দফায় আরও তিন কোটি মানুষের জন্য অক্সফোর্ডের টিকা আসবে। দুই দফার টিকা মিলিয়ে মোট সাড়ে চার কোটি মানুষকে টিকা দেওয়া যাবে।”

উল্লেখ্য, একজনকে করোনাভাইরাসের দু’টি করে ডোজ নিতে হবে। সেই হিসেবে দুই দফায় পাওয়া ৯ কোটি ডোজ টিকা সাড়ে ৪ কোটি মানুষকে দেওয়া যাবে, যা দেশের মোট জনসংখ্যার ২০%।

About

Popular Links