Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে তুরস্ককে পাশে চায় বাংলাদেশ

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে প্রধানমন্ত্রী এই আহ্বান জানান

আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৯:২৩ পিএম

মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বিতাড়িত রোহিঙ্গা নাগরিকদের দেশে ফেরা নিশ্চিত করতে তুরস্ককে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে প্রধানমন্ত্রী এই আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব হাসান জাহিদ তুষার পরে বৈঠকের বিভিন্ন দিক সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন।

হাসান জাহিদ বলেন, “রোহিঙ্গা ইস্যুতে আলোচনাকালে প্রধানমন্ত্রী জোরপূর্বক বিতাড়িত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের নাগরিকদের নিজ মাতৃভূমিতে প্রত্যাবর্তন নিশ্চিতে তুরস্ককে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানান।”

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনে সেনা অভিযান শুরুর পর কয়েক মাসের মধ্যে ৭ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়। আগে থেকে বাংলাদেশে ছিল আরও ৪ লাখ রোহিঙ্গা। 

আন্তর্জাতিক চাপের মধ্যে মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে ২০১৭ সালের শেষ দিকে বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি করলেও সেই প্রত্যাবাসন আজও শুরু হয়নি। মিয়ানমার যাতে রোহিঙ্গাদের ফেরার পরিবেশ তৈরি করে, সেজন্য চাপ সৃষ্টি করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছে বাংলাদেশ। তুরস্কও রোহিঙ্গা সঙ্কটে বাংলাদেশের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বিভিন্ন সময়ে।

উপ-প্রেস সচিব বলেন, বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে তুরস্ককে আরও বেশি বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

ভূ-রাজনৈতিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশের বিশাল আঞ্চলিক বাজার এবং অভ্যন্তরীণ বাজারের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, “দক্ষিণ এশিয়া ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কেন্দ্রে অবস্থানের কারণে বাংলাদেশের বিশাল বাজার রয়েছে। এখানে বিনিয়োগ করলে উভয়ই লাভবান হবে।”

বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বাড়াতে তুরস্কের আগ্রহের কথা জানিয়ে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তার দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে মূল্য দেয়। দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য সম্পর্ককে শক্তিশালী করার জন্য যা কিছু করার তার দেশ সেটা করবে।

বাংলাদেশে জ্বালানি থেকে পর্যটন, সকল খাতেই তুরস্ক বিনিয়োগ করছে বলে জানান দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ানকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণের কথাও পুর্নব্যক্ত করেন হাসিনা।  সেজন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাস মহামারী পরিস্থিতির উন্নতি হলে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ-জয়ন্তীর মাস মার্চে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান সফরে আসতে পারেন।

হাসান জাহিদ তুষার জানান, বাংলাদেশের অগ্রগতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সেইসঙ্গে মহামারি মোকাবেলায় শেখ হাসিনার সরকারের নেওয়া পদক্ষেপেরও প্রশংসা করেন তিনি।

About

Popular Links