Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মিরপুর থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে তাঁতপল্লী

নতুন করে গড়ে তোলা এই তাঁতপল্লীর পরিবারগুলোর জন্য স্কুল কলেজ সহ সব ধরণের নাগরিক সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে তাদের উৎপাদনের সক্ষমতা বৃদ্ধি করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১০:৩৬ এএম

ঢাকার মিরপুর থেকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী বেনারসি পল্লী। মাদারীপুর ও শরীয়তপুর জেলার শিবচর ও জাজিরা উপজেলায় খোলামেলা পরিবেশে নতুন করে এই পল্লী হড়ে তোলা হবে। এটি গড়ে তুলতে ইতোমধ্যেই ১২০ একর জমি পধিগ্রহণের কাজ শুরু হয়েছে। নতুন করে গড়ে তোলা এই তাঁতপল্লীর নাম হবে শেখ হাসিনা তাঁতপল্লী। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে যে, ওই পল্লীতে তাঁতী পরিবারগুলোর জন্য স্কুল কলেজ সহ সব ধরণের নাগরিক সুবিধা প্রদানের মাধ্যমে তাদের উৎপাদনের সক্ষমতা বৃদ্ধি করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। 

উল্লেখ্য, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় পরিদর্শনকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৪ সালের ১২ অক্টোবর বেনারসি তাঁতপল্লি ঢাকার বাইরে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন। 

এর প্রেক্ষিতে ইতোমধ্যে শেখ হাসিনা তাঁতপল্লী স্থাপন শীর্ষক একটি প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) অনুমোদন পেয়েছে বলে পরিকল্পনা মন্ত্রনালয় সূত্র জানা গেছে। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের আওতায় বাংলাদেশ তাঁত বোর্ড প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে যার ব্যয় ধরা হয়েছে ২৫৩ কোটি ৩০ লাখ টাকা। এই ব্যয়ের পুরোটাই সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে সরবরাহ করা হবে। গত জুলাই মাসে শুরু হওয়া প্রকল্পটি ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে।  

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি প্রকল্পটির ওপর পরিকল্পনা কমিশনে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির (পিইসি) সভায় দুটি পর্যায়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের প্রস্তাব করে অনুমোদনের জন্য পেশ করা হয়েছিল।     

প্রসঙ্গত, রাজধানীর মিরপুর এলাকায় প্রায় শত বছরেরও বেশি সময় ধরে গড়ে ওঠা বেনারসী পল্লীর আশপাশের এলাকায় যেসব তাঁতঘর ছিল, তা দিনে দিনে উঠে যাচ্ছে। কারণ, এখানকার তাঁত ঘরগুলো ভেঙে বড় বড় আবাসিক ভবন করা হচ্ছে। যার ফলে চড়া দামে বাসা ভাড়া নিয়ে তাঁতীরা তাঁত বুনে তার খরচ তুলতে পারছেন না ফলস্বরুপ মিরপুরে তাঁতীর সংখ্যা কমে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে উন্নত পরিবেশে তাঁতি ও তাদের পরিবারের জন্য বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা সৃষ্টি হবে। তাঁতিদের জীবনযাত্রার মান ও আর্থ সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে’।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন।

About

Popular Links