Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভাড়া দিতে না পারায় ৫ দিন তালাবদ্ধ, শিশুর মৃত্যু

ওসি সমীর কুমার সরদার জানান, শিশু মৃত্যুর ঘটনায় অভিযোগ পেয়ে প্রাথমিক তদন্তে গৃহকর্ত্রীর অসাবধানতায় শিশুটি মারা গেছে বলে প্রতীয়মান হয়েছে

আপডেট : ১৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:২১ পিএম

খুলনা মহানগরীতে ভাড়া না পেয়ে পাঁচ দিন শিশু সন্তানসহ ভাড়াটিয়াকে তালাবদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে। এ সময় বালতির পানিতে ডুবে আজিজা তাসমিয়া নামের ছয় মাস বয়সী ওই শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। 

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) শিশুটির বাবা-মা এ ঘটনায় হরিণটানা রিয়াবাজার এলাকার বাড়িওয়ালা মো. নওশেরকে দায়ি করে থানায় অভিযোগ দেন। 

তবে পুলিশ অপমৃত্যু মামলা গ্রহণ করায় তারা আদালতে মামলা করার প্রক্রিয়া শুরু করেন।

লবনচোরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সমীর কুমার সরদার জানান, শিশু মৃত্যুর ঘটনায় অভিযোগ পেয়ে প্রাথমিক তদন্তে গৃহকর্ত্রীর অসাবধানতায় শিশুটি মারা গেছে বলে প্রতীয়মান হয়েছে। গৃহকত্রী শিশুটিকে গোসল করাতে করাতে মোবাইল ফোন আসলে তিনি কথা বলার জন্য সে অবস্থায় শিশুকে রেখে ছাদে চলে যান। এদিকে শিশুটি পাত্রের  পানিতে পড়ে অচেতন হয়ে যায়। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে তার মৃত্যু হয়। তাই এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।  

অভিযোগে জানা যায়, ২০২০ সালে ডিসেম্বর মাসে কাঠের ডিজাইন মিস্ত্রি ইমদাদুল ইসলাম ও তার স্ত্রী তামান্না মাসে ৪ হাজার টাকা চুক্তিতে রিয়াবাজার এলাকায় একতলা বাড়ির দুইটি কক্ষ ভাড়া নেন। কিন্তু জানুয়ারি মাসের শুরুতে  অগ্রিম ভাড়া দিতে না পারায় ৬ জানুয়ারি থেকে ঘরে শিশু সন্তানসহ তামান্নাকে তালাবদ্ধ করে রাখেন বাড়িওয়ালা নওশের। এ সময় তামান্নার স্বামী মোংলা ঝিউধরা এলাকায় কাঠের কাজে ব্যস্ত ছিলেন।

তামান্না ইসলাম জানান, তালাবদ্ধ অবস্থায় গত ১১ জানুয়ারি দুপুরে শিশুটি খেলতে গিয়ে বালতির পানির মধ্যে পড়ে উল্টে যায়। ঘরে এসে তিনি শিশুটিকে ওই অবস্থা থেকে উদ্ধার করেন। কিন্তু তালাবদ্ধ থাকায় চিকিৎসকের কাছে নিতে পারেননি।

স্থানীয় জলমা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য শহিদুল ইসলাম লিটন জানান, শিশুটির মা জানালা দিয়ে চিৎকার করলে আশেপাশের লোকজন তালা ভেঙ্গে তাদেরকে উদ্ধার করে। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে শিশুটি মারা যায়।


About

Popular Links