Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অভিজিৎ হত্যা মামলার রায় ১৬ ফেব্রুয়ারি

২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। ওই দিন রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়

আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৬:১৪ পিএম

আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি ব্লগার ও লেখক অভিজিৎ রায় হত্যা মামলায় রায় ঘোষণার দিন ধার্য করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান এই দিন ধার্য করেন।

আদালতের বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) গোলাম সারোয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি বলেন, এই মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে ২৮ জন সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। এরমধ্যে তিন আসামি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। আমরা আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দাবি করেছি।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। এ সময় তার স্ত্রী রাফিদা আহমেদ আহত হন। ওই দিন রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় অভিজিৎ রায়ের মৃত্যু হয়। 

অভিজিৎ ও রাফিদা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক। অমর একুশে গ্রন্থমেলা উপলক্ষে তারা দেশে এসেছিলেন। মেলা থেকে বেরিয়ে বাসায় ফেরার পথে তারা ওই হামলার শিকার হন। এ ঘটনায় অভিজিৎ রায়ের বাবা অজয় রায় শাহবাগ থানায় হত্যা মামলা করেন।

২০১৯ সালের ১৩ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারীর আদালতে ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পরিদর্শক মনিরুল ইসলাম।

অভিজিৎ হত্যা মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন- আরাফাত রহমান ওরফে শামস ওরফে সাজ্জাদ, মোজাম্মেল হোসেন ওরফে সায়মন ওরফে শাহরিয়ার, আবু সিদ্দিক ওরফে সোহেল ওরফে সাকিব, আকরাম হোসেন আবির ওরফে আদনান ও শফিউর রহমান ফারাবী। আসামিদের মধ্যে জিয়াউল ও আকরাম পলাতক। অন্যরা কারাগারে। তাদের আজ আদালতে হাজির করা হয়।

About

Popular Links